ফ্যাশান ডিজাইন কিংবা ব্লগের সীমা ছাড়িয়ে সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্সর

ঘরের বাইরে বের হতে না পেরে যারা সোশ্যাল মিডিয়াকেই নিজের বুটিক, জুয়েলারি কিংবা মেকআপ আর্টের জন্য বিজনেস প্ল্যাটফর্ম বানিয়ে নিয়েছেন, এমন ফ্যাশান ডিজাইনার কিংবা ব্লগারের সংখ্যা নেহাত কম নয়। তবে এই ডিজাইন কিংবা ব্লগের গন্ডী ছাড়িয়ে নারী উদ্যোক্তাদের বিজনেসকে প্রশমিত করতে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন একেবারেই হাতে গোনা ক’জন নারী। নাম্রাতা খান সম্পর্কে বলতে হলে প্রথমেই আপনাকে খাবি খেতে হবে, আসলে ঠিক কোন বিষয়টা বাদ দিয়ে নির্দিষ্ট কোন দিকে ফোকাস করা যেতে পারে!

সোশ্যাল ইনফ্লুয়েন্সর শব্দটার সাথে আমরা খুব একটা পরিচিত নই। তবে অনলাইনে এর প্রভাব চোখে পড়ার মত; ঠিক যেমন আপনার চোখ কোথাও না কোথাও এক পলকের জন্য হলেও আটকে যাচ্ছে ‘এখানেও নাম্রাতা!’ এমনটা ভেবে। ফেসবুকে অসংখ্য পেইজের লাইভ প্রোমোটর হিসেবে নাম্রাতার সুখ্যাতি আছে কথাটা বলে থেমে গেলে আসলে কম হয়ে যায়।

অনলাইনে কিংবা অফলাইনে নারীদের সফল উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার জন্য মোটিভেটেড করার কাজটাই মূলত নাম্রাতা করছেন তার মৃদু হাসিমাখা হিমশীতল দৃষ্টি আর বস্তুনিষ্ঠ বক্তব্যের মাধ্যমে। আর ফেসবুক ভিত্তিক গ্রুপ তৈরি করে নারীদের ইনফ্লুয়েন্স করে স্বাবলম্বী হবার জন্য চমৎকার প্ল্যাটফর্ম বানিয়েছেন নাম্রাতা খান, যা সব নারীর কাছে ‘ওম্যান ক্যান’ নামে পরিচিত।

নিয়মিত গেট-টু-গেদার আর ওয়ার্কশপ করার মাধ্যমে স্বাবলম্বী হতে চাওয়া নারীদের জন্য নাম্রাতার ‘ওমেন ক্যান’ একটা দৃষ্টান্ত বলা যায়।

‘ওমেন ক্যান’ ইফতার পার্টি

ব্যসসায়িক জীবনে নাম্রাতার ‘এক্সক্লুশিয়া’তে পেতে পারেন সব ধরেন ফ্যাশানেবল ড্রেস আর স্কার্ফ। আর এই বাহারি ডিজাইন আর চমতকার ফিনিশিং এর ড্রেস সমৃদ্ধ শোরুমটি যমুনা ফিউচার পার্কে অবস্থিত।

For english version : click here