প্রধান ফটকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভুল নাম, জানেই না কর্তৃপক্ষ

মীর শাহাদাত, কুবি প্রতিনিধি : প্রতিষ্ঠাকালীন প্রধান ফটকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম ভুলভাবে খোদাই করা থাকলেও এ ব্যাপারে জানেই না কর্তৃপক্ষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম নিয়ে নানা সময় বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হওয়ার পরও এ বিষয়ে ভ্রুক্ষেপ নেই কর্তৃপক্ষের। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

জানা যায়, ২০০৬ সালে জাতীয় সংসদে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় আইন-২০০৬ নামে একটি বিল পাশ হয়। আইনটির ৩ নং ধারার ১ নং উপধারায় বলা হয়েছে এই আইনের বিধান অনুযায়ী ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (Comilla University) নামে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হইবে।’ তবে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার দূরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বেলতলী বিশ্বরোড সংলগ্ন এলাকায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের নামফলকের ওপরে বিশ্ববিদ্যালয়টির নাম Comilla University এর পরিবর্তে University Of Comilla লেখা রয়েছে। অথচ এ নামে ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ও রয়েছে। যদিও সেটি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর কালো তালিকাভূক্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের এরকম বিভ্রান্তিকর নাম ও আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী সাইফুল ইসলাম বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নামের সাথে শিক্ষার্থীদের আবেগ জড়িত। এমন একটি স্পর্শকাতর বিষয় প্রশাসনের নজরে না আসায় আমি হতাশ হয়েছি। এবং এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আশা করছি বিষয়টি কর্তৃপক্ষ খুব দ্রুত সংশোধন করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক এন এম রবিউল আউয়াল চৌধুরী বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম এরকম ভুলভাবে উপস্থাপন হওয়াটা খুবই দুঃখজনক। এটিতো (খোদাইকৃত ভুল নাম) আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম নয়। বিষয়টি দ্রুতই সংশোধন করা দরকার।’

এদিকে, সম্প্রতি ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডেনশিয়াল ইভালুয়েশন সার্ভিস (আইসিইএস) দেশের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সনদধারীরা কানাডায় উচ্চশিক্ষার জন্য মূল্যায়নের যোগ্যতা হারিয়েছে উল্লেখ করে একটি তালিকা প্রকাশ করেছে। সেখানে একমাত্র সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের নামও উল্লেখ করা হয়েছে। তবে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউজিসি সংশ্লিষ্টরা বলছেন এটি ‘দ্য ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লা’ নামক রাজধানীর একটি অননুমোদিত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়।
সেসময় ইউজিসি সদস্য ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের কেমিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক দিল আফরোজ বেগম একটি অনলাইন গণমাধ্যকে বলেন, ‘প্রকাশিত তালিকাটি কানাডা সরকার অনুমোদিত কিছু নয়। তাই চিন্তার কারণ নেই। আর এছাড়াও তালিকায় ঢাকার উত্তরার ইউনিভার্সিটি অফ কুমিল্লার নাম রয়েছে, যেটি ইউজিসির কালো তালিকাভুক্ত একটি বেসকারি বিশ্ববিদ্যালয়। তাই এ বিষয়ে পাবলিক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো শিক্ষার্থীর উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।’

এ বিষয় জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. মো: আবু তাহের বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় গেইটের নামফলকে এ ধরনের ভুল দীর্ঘ এতো বছর আমাদের কর্তৃপক্ষের নজরে আসে নাই। বিষয়টি খুবই দুঃখজনক এবং অবশ্যই মারাত্মক ভুল। বিষয়টি আমরা দ্রুতই সংশোধন করে নিবো।