পরিচ্ছন্ন ড্রেসে ক্লাসে আসবে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম চালু করতে যাচ্ছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। আজ সোমবার এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে আগামী ৩১ জানুয়ারি থেকে এ কার্যক্রম বাস্তয়ন হবে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শরীর, স্বাস্থ্য ও মন সুস্থ রাখতে দেশের প্রায় ৬৫ হাজার বিদ্যালয়ে বাধ্যতামূলক পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম চালু করা হবে। সবাইকে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ড্রেস পরে স্কুলে আসতে হবে। অপরিষ্কার অবস্থায় কোনো শিক্ষার্থীকে ক্লাসে ঢুকতে দেয়া হবে না।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানান, শিক্ষকদের নির্দেশে প্রতিদিন বিদ্যালয়ের বারান্দা, মাঠ, ক্লাস রুমসহ পুরো সীমানা পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমে অংশ নেবে শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, এ কার্যক্রমের ওপর নির্ভর করে প্রতি মাসে স্কুলে একজন শিক্ষার্থীকে সেরা পুরস্কার তুলে দেয়া হবে। পাশাপাশি প্রতিবছর উপজেলা, জেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ে একজনকে বর্ষসেরা হিসেবে নির্বাচন করে পুরস্কার তুলে দেয়া হবে।

আগামী ৩১ জানুয়ারি সারাদেশে একযোগে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন ও এ মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হাসানের উপস্থিতিতে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হবে।

এ বিষয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এএফএম মনজুর কাদির বলেন, ‘মানসম্মত শিক্ষা মানেই শুধু ভালো শিক্ষা নয়, শিক্ষার্থীদের শরীর-মন, সুন্দর পোশাক ও পরিছন্নতাও অতি জরুরি। এ লক্ষ্যে আমরা দেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম চালু করতে যাচ্ছি। আজ সোমবার এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করা। এটি প্রত্যেকটি বিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ঝুলিয়ে দিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নে প্রতিটি জেলার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বিষয়গুলো নজরদারি করবেন। যদি কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করা না হয় তবে সে প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ কার্যক্রম বাস্তবায়ন হলে অভিভাবকদের মধ্যে আরও সচেতনতা বাড়বে।’