দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৮ ইউপিতে নির্বাচন কাল

দ্বিতীয় ধাপে ৮৩৮ ইউপিতে নির্বাচন কাল

নিউজ ডেস্ক : ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে আগামীকাল ৮৩৮টি ইউনিয়ন পরিষদে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে শুরু হয়ে ভোট চলবে বিকেল চারটা পর্যন্ত।

এরই মধ্যে ভোট গ্রহণের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছানো হচ্ছে নির্বাচনী সরঞ্জাম।এই ধাপে ইভিএমে ভোট হবে ২৬টি ইউনিয়ন পরিষদে।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান হয়েছেন ৮১ জন। সাধারণ ওয়ার্ডে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন ২০৩ জন আর সংরক্ষিত সদস্য ৭৩ জন।

চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দিতা করবেন ৩ হাজার ৩১০ জন আর সাধারণ সদস্য পদে ২৮ হাজার ৭৪৭ জন।

দ্বিতীয় ধাপের এই নির্বাচনে ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ১৭ অক্টোবর পর্যন্ত মনোনয়ন জমা, ২১ অক্টোবর বাছাই এবং ২৬ অক্টোবর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ সময় ছিল।

দ্বিতীয় দফায় যে ৮৪৮টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচনের জন্য তফসিল হয়েছিল, তার ৮৩৮টিতে বৃহস্পতিবার ভোট হবে।

এছাড়া চারটি ইউপির ভোট স্থগিত, একটির ভোট বাতিল হয়েছে। পাঁচটি ইউপিতে সব পবে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নির্বাচনী এলাকায় নির্বাচনের দিন ট্রাক, পিকআপ ও ইঞ্জিনচালিত নৌযান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। মোটরবাইক চলাচল বন্ধ থাকবে ১২ নভেম্বর মধ্যরাত পর্যন্ত।

এবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে সারাদেশেই প্রাণঘাতী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ছেন বিভিন্ন দলের কর্মী-সমর্থকরা। তবে নির্বাচন-পূর্ব সহিংস ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করে প্রয়োজনে প্রার্থিতা বাতিলের মতো পদক্ষেপ নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

অক্টোবরের শেষ থেকে নভেম্বরের শুরুতে নরসিংদীর আলোকবালী এবং পাড়াতলী ইউনিয়নে এক সপ্তাহের ব্যবধানে সহিংসতায় পাঁচজনের প্রাণ যায়। ২৫ অক্টোবর বাঁশগাড়ী ইউনিয়নে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের সংঘর্ষে ২০ জন আহত হন।

এছাড়া গত ৬ নভেম্বর কক্সবাজার সদরের ঝিলংজায় দুর্বৃত্তের হামলায় জেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি জহিরুল ইসলাম সিকদার ও তার ভাই ইউপি নির্বাচনের সদস্য প্রার্থী কুদরত উল্লাহ সিকদারসহ তিনজন গুলিবিদ্ধ হন।

পাবনার সুজানগরের ভায়না ইউনিয়নে গত ৯ নভেম্বর সংঘর্ষে ১০ জন আহত হন, ভাঙচুর করা হয় ১১টি মোটরসাইকেল। এছাড়া ২৯ অক্টোবর একই উপজেলার হাটখালী ইউনিয়নে সংঘর্ষ, গোলাগুলি ও ভাঙচুরের ঘটনায় ১৫ জন আহত হন।