ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণের আলামত মিলেছে

 ক্যাম্পাস ডেস্ক :

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) গণধর্ষণের শিকার ছাত্রীর ফরেনসিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের আলামত মিলেছে বলে জানিয়েছেন ফরেসনসিক চিকিৎসক বিভাগীয় প্রধান সোহেল মাহমুদ।

ফরেনসিক পরীক্ষার পর তার চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা করণীয় নির্ধারণে বৈঠক করেছেন।

সোমবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেলে ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের (ওসিসি) সমন্বয়কারী ডা. বিলকিস বেগম আরো জানান, ফরেনসিক পরীক্ষায় তার গলায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ঘটনার সময় ধর্ষক তার গলা চেপে ধরেছিল। এই কারণে চিকিৎসাধীন মেয়েটির কথা বলতে কষ্ট হচ্ছে। বোর্ডের সদস্য নাক-কান-গলা বিভাগের চিকিৎসকরা তাকে দেখভাল করছেন।

ডা. বিলকিস বেগম জানান, মঙ্গলবার ওই ছাত্রীর রেডিওলজি (বয়স নির্ধারণ) পরীক্ষা করা হবে। এছাড়া বোর্ডের সিদ্ধান্তক্রমে আরো কিছু পরীক্ষা দেয়া হয়েছে, সেগুলো সম্পন্ন করা হবে।

এছাড়া ছাত্রীর গলা ও নাকে নখের আঁচড়ের চিহ্ন পাওয়া গেছে। ওই ছাত্রী অ্যাজমা রোগে আক্রান্ত বলেও জানান ডা. বিলকিস বেগম।

ফরেনসিক পরীক্ষায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের আলামত মিলেছে বলে জানান ঢামেক ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। এক না একাধিক ব্যক্তি ধর্ষণে জড়িত তা নিশ্চিতে ওই ছাত্রীর কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে বলেও জানান তিনি।

৭ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের একটি সূত্র জানায়, ছাত্রীর গলার দুই পাশে নখের আঁচড় দেখা গেছে। গলা চেপে ধরার কারণে কথা বলতে তার কষ্ট হচ্ছে। নাকের উপরেও নখের চিহ্ন পাওয়া গেছে।