ছাত্রলীগের ২ নেতা আটকের প্রতিবাদে রাবি ভাঙ্গচুর, সড়ক অবরোধ

ছাত্রলীগের ২ নেতা আটকের প্রতিবাদে রাবি ভাঙ্গচুর, সড়ক অবরোধ

RU.Photo-31-3-2014-1222মো:নুরে ইসলাম মিলন, রাজশাহী : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ছাত্রলীগের দুই নেতাকে আটক করার প্রতিবাদে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভবনে ভাঙ্গচুর চালিয়েছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
পরে তাদের মুক্তির দাবিতে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। এতে ওই মহাসড়কে যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।
আটক ছাত্রলীগ নেতারা হলেন- রাবি ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত সালাম ও রাবি ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আখতারুল ইসলাম আসিফ।
ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, রোববার (৩০ মার্চ) সন্ধ্যায় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুদীপ্ত সালাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান আবাসিক হলে তার নিজের কক্ষেয় সুদীপ্ত সালামের নিজ এলাকার (ঝিনাইদহ) বাসিন্দা আব্দুল মুহিত ও ইমরান হোসেন নামে দুই শিক্ষার্থীকে বেধড়ক মেরে ‘শিবির’ বলে পুলিশে সোর্পদ করে। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের দুই নেতাকে সোমবার সকালে গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ আটক করে । RU.Photo-31-3-2014-2222
এ ঘটনার প্রতিবাদে ছাত্রলীগের কর্মীরা দুপুর ১২টার দিকে রাবি প্রক্টর অফিসে ভাঙ্গচুর চালায়। পরে তাদের মুক্তির দাবিতে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে।
রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানার সাথে কথাবলার চেষ্টা করলে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায় ।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর তারিকুল হাসান এর সাথে কথা বললে তিনি যানান, ছাত্রলীগ নামধারী কয়েকজন ছাত্র এ ধরনের ঘটনা ঘটিয়েছে। বিশৃঙ্খলা করলে ছাএলীগ বা ছাএদলই হোক না কেন কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না ।
এর আগে শুক্রবার মাদার বখশ হলে আবদুল হান্নানকে মেরে পা ভেঙ্গে দিয়েছিল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। শনিবার ও শাহ মখদুম আবাসিক হলে শরিফুল ইসলাম বাবু নামের ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের এমবিএর শিক্ষার্থীকে মারধরের পর মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকি দেয় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের এক নেতা। ওই ঘটনার পর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে।
মহানগর গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশের অফিসার ইনচার্জ সাইদুর রহমান ভূইয়া আটকের সত্যতা স্বীকার করে জানান, গত ২ ফেব্রুয়ারির ঘটনায় সালাম ও আসিফ জড়িত ছিল। অনেক দিন থেকেই এদেরকে আটকের চেষ্টা চলছে।