গোপালগঞ্জে বশেমুরবিপ্রবিতে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জে ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু হয়েছে। ১৬ সেপ্টেম্বর শনিবার থেকে ২২ অক্টোবর রাত ১২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট এ প্রচারিত নিয়মাবলী অনুসারে অনলাইনে আবেদন করা যাবে। ভর্তি পরীক্ষা ২, ৩ এবং ৯, ১০ নভেম্বর তারিখে অনুষ্ঠিত হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো: মাহবুবুল আলমের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ‘এবারে নয়টি ইউনিটের অধীনে ৩৪ বিভাগে সর্বমোট ৩,২৪৫ জন (বিদেশি শিক্ষার্থী ও কোটাসহ) শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। ইউনিটসমূহ হলো এ, বি, সি, ডি, ই, এফ, জি, এইচ এবং আই। ডি এবং ই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ২ নভেম্বর, এফ এবং জি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৩ নভেম্বর, সি এবং এইচ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ৯ নভেম্বর, এ, বি এবং আই ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।’

এ ইউনিটের অধীনে বিভাগসমূহ হলো কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং, ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, এ্যাপ্লাইড কেমিস্ট্রি অ্যান্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং, খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াকরণ ইঞ্জিনিয়ারিং।

বি ইউনিটের অধীনে বিভাগ সমূহ হলো গণিত, পরিসংখ্যান, রসায়ন, পদার্থ বিজ্ঞান এবং পরিবেশ বিজ্ঞান ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, সি ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ফার্মেসি, বায়োটেকনোলজি অ্যান্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং, বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ডমলিকুলার বায়োলজি, মনোবিজ্ঞান, উদ্ভিদ বিজ্ঞান।

ডি ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ইংরেজি, বাংলা, ইতিহাস, ই ইউনিটের অধীনে বিভাগসমূহ হলো সমাজবিজ্ঞান, লোকপ্রশাসন, অর্থনীতি, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, রাষ্ট্রবিজ্ঞান, এফ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ, একাউন্টিং অ্যান্ড ইনফরমেশন সিস্টেমস, মার্কেটিং, ফাইন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং এবং ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট।

জি ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো আইন, এইচ ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো কৃষি, ফিসারিজ অ্যান্ড মেরিন বায়োসাইন্স এবং প্রাণিসম্পদ বিজ্ঞান ও ভেটেরিনারি মেডিসিন, আই ইউনিটের অধীনে বিভাগ হলো আর্কিটেকচার।

প্রসঙ্গত, এবারে মূল আসনের অতিরিক্ত হিসেবে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ৫ শতাংশ, প্রতিবন্ধী কোটায় ১ শতাংশ, খেলাধুলা/সাংস্কৃতিক কোটায় এক শতাংশ, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী কোটায় এক শতাংশ এবং পোষ্য কোটায় ১ শতাংশ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

এছাড়া ১০০টি আসন বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য সংরক্ষিত রয়েছে।