কোরআনের ৩১০ কোটি পাণ্ডুলিপি বিতরণ!

ধর্ম ডেস্ক : কোরআন ও হাদিসের খেদমতের জন্য প্রতিষ্ঠিত হয় বাদশাহ ফাহাদ (কোরআন) কমপ্লেক্স। ১৯৮৫ সাল মোতাবেক ১৪০৫ হিজরি সালে সৌদি আরবের বাদশাহ ফাহাদ বিন আবদুল আজিজ এই কমপ্লেক্স-এর উদ্বোধন করেন। এখান থেকেই পবিত্র কোরআন মুদ্রণ করা হয়। অবাক করা তথ্য হল, প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে(৩৪ হিজরি বছরে) এ পর্যন্ত ৩১০ কোটি কোরআনের পাণ্ডুলিপি মুদ্রণ ও বিতরণ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

কোরআনের পাণ্ডুলিপি মুদ্রণের পাশাপাশি এখানে হাদিস সংরক্ষণ ও প্রচারের জন্যও রয়েছে বিশেষ প্রকল্প। তবে এ কমপ্লেক্স-এর প্রধান কাজ হলো পবিত্র কোরআন মুদ্রণ ও বিশ্বব্যাপী তা ছড়িয়ে দেয়া। তাছাড়া দৃষ্টি প্রতিবন্ধীদের জন্যও ব্রেইল পদ্ধতিতে পবিত্র কোরআনের পাণ্ডুলিপি ছাপানোর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। কোরআনের হাফেজদের জন্য রয়েছে উচ্চতর প্রশিক্ষণের সুব্যবস্থা।

বাদশাহ ফাহাদ কোরআন প্রিন্টিং কমপ্লেক্স অত্যন্ত যত্ন ও আন্তরিকতা সহকারে পবিত্র কোরআনুল কারিম-এর ছাপানোর কাজটি করে থাকে। এ পর্যন্ত বিভিন্ন ভাষায় ৩১০ কোটি কোরআনের পাণ্ডুলিপি ছাপা ও বিতরণ করেছে সৌদি আরবের এ প্রতিষ্ঠান।

শুধু (গত বছর) ১৪৩৯ হিজরি সনে বিভিন্ন ভাষায় অনুদিত ১৮ মিলিয়ন (১ কোটি ৮০ লাখ) পাণ্ডুলিপি বিতরণ করছে সংস্থাটি। আর ১৪০৫ হিজরি সাল থেকে তারা ৩১০ মিলিয়ন (৩ শত ১০ কোটি) কোরআনের পাণ্ডুলিপি বিতরণ করে।

উল্লেখ্য যে, এ প্রতিষ্ঠান থেকে বছরে ১ কোটি ২০ লাখ কোরআনের পাণ্ডুলিপি মুদ্রণ করে থাকে। বিশ্বের ৫৬টি ভাষায় অনুবাদ ও তাফসির প্রকাশ করা হয়। ৮০০ আলেম ও ৭০০ প্রকৌশলীর নিরলস পরিশ্রম ও আন্তরিকায় মুদ্রিত হয় আসছে এসব পাণ্ডুলিপি।