করোনা প্রাণ নিল আরও ১৭৪ জনের

করোনা প্রাণ নিল আরও ১৭৪ জনের

বিশেষ সংবাদদাতা : করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে আরও ১৭৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ২৪ হাজার ৩৪৯ জনে।

তাদের মধ্যে পুরুষ ৯০ জন ও নারী ৮৪ জন। এদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ১৩৪ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৩৬ জন ও বাড়িতে চারজনের মৃত্যু হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুহার ১ দশমিক ৭১ শতাংশ।

একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ছয় হাজার ৯৫৯ জন। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মোট ১৪ লাখ ২৫ হাজার ৮৬১ জনে।

সোমবার (১৬ আগস্ট) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, একই সময়ে সরকারি ও বেসরকারি ৭১৭টি ল্যাবরেটরিতে ৩১ হাজার ৮০৪টি নমুনা সংগ্রহ ও ৩৩ হাজার ১৫টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ নিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়াল ৮৪ লাখ ৪১ হাজার ৫৩৬টি।
গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ২১ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ। গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত শনাক্তের মোট হার ১৬ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন নয় হাজার ২৬৮ জন। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা ১৩ লাখ এক হাজার ৯৬৬ জন। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থতার হার ৯১ দশমিক ৩১ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃত ১৭৪ জনের মধ্যে দশোর্ধ্ব একজন, বিশোর্ধ্ব তিনজন, ত্রিশোর্ধ্ব ১২ জন, চল্লিশোর্ধ্ব ২১ জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ৪১ জন, ষাটোর্ধ্ব ৫২ জন, সত্তরোর্ধ্ব ৩৩ জন, আশি-ঊর্ধ্ব সাতজন, নব্বই বছরের উর্ধ্বে তিনজন ও ১০০ বছরের বেশি বয়সী একজন মারা যান।

বিভাগওয়ারি হিসাবে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা বিভাগে ৭০ জন, চট্টগ্রামে ৩৭ জন, রাজশাহীতে ১৭ জন, খুলনায় ১৯ জন, বরিশালে সাতজন, সিলেটে ছয়জন, রংপুরে সাতজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম তিনজনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।