আত্রাইয়ে নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই আঞ্চলিক মহাসড়কে ধ্বস

আত্রাইয়ে নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই আঞ্চলিক মহাসড়কে ধ্বস

রুহুল আমিন, আত্রাই (নওগাঁ) থেকে : নওগাঁর আত্রাইয়ে নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই নওগাঁ-নাটোর আঞ্চলিক মহাসড়ক ধ্বসে গেছে। ফলে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার শাহাগোলা নামক স্থানে।
জানা যায়, নওগাঁ, রাজশাহী ও নাটোর জেলার লাখ লাখ মানুষের যোগাযোগের উন্নয়নের জন্য রেললাইনের পশ্চিম দিক দিয়ে একটি আঞ্চলিক মহাসড়ক নির্মণের পরিকল্পনা করা হয়। সে অনুযায়ী ৩০০ কোটি টাকা ব্যয়ে এ মহাসড়কের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। নওগাঁ সদর, রাণীনগর, আত্রাই, রাজশাহীর বাগমারা, নাটোরের নলডাঙ্গা ও নাটোর সদর উপজেলার উপর দিয়ে এ সড়কটি নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়। সম্প্রতি আত্রাই অংশের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায় পৌঁছলেও রাণীনগর ও নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার অংশে কার্পেটিংসহ অনেক কাজ এখনও সম্পন্ন হয়নি। এদিকে সড়কটির নির্মাণ কাজ শেষ না হলেও বেশ কিছুদিন ধরে এ সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল শুরু করে। ফলে আত্রাইবাসীর নওগাঁ জেলা সদর ও নাটোরের সাথে যোগাযোগের এক নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়।
এদিকে নির্মাণ কাজ শেষ না হতেই উপজেলার শাহাগোলা নামক স্থানে সড়কটি ধ্বসে গেছে। স্থানীয়রা জানান, গত শনিবার সকালে ওই স্থানে প্রথমে ফাটল দেখা দেয়। সময়ের সাথে সাথে ফাটলটি বড় হতে থাকে। এক পর্যায় তা ধ্বসে যায়। স্থানীয়দের অভিযোগ কর্তৃপক্ষের উদাসিনতায় সড়কটিতে নি¤œমানের কাজ হওয়ায় এভাবে ধ্বসে গেছে। সড়কটি এভাবে ধ্বসে যাওয়ায় ওই সড়ক দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন চলাচল করছে। সংবাদ পেয়ে নওগাঁ সড়ক ও জনপথের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন এবং ঠিকাদেরর লোকজন দিয়ে সংস্কারের কাজ শুরু করা হয়েছে। শাহাগোলা গ্রামের আব্দুর রহমান লিটন বলেন, সড়ক সংলগ্ন একটি পুকুরের পানি সেচা হচ্ছিল। পুকুরের পানি কমে যাবার সাথে সাথে প্রথমে সড়কে ফাটল দেখা দেয়। বিকেল নাগাদ ওই জায়গাটি ধ্বসে যায়। নওগাঁ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাজেদুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থল আমরা পরিদর্শন করেছি। এটি আমাদের নিকট একটি অস্বাভাবিক বিষয় বলে মনে হচ্ছে। এখানে নি¤œমানের কাজের অভিযোগ ভিত্তিহীন। বিষয়টি সম্পর্কে উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ দল আসছেন। তারা এসে পরীক্ষা নিরীক্ষা করলে প্রকৃত বিষয়টি জানা যাবে। আপাতত হালকা যানবাহন চলাচলের জন্য বালু ভরাট করে সড়কটি উন্মুক্ত রাখা হয়েছে।