৮ রানের মধ্যে ৩ উইকেট নেই বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : মুমিনুল হক যে ভিত্তিটা গড়ে দিলেন, পরের ব্যাটসম্যানরা সেটা ধরে রাখতে পারলেন না। দারুণ অবস্থানে থাকার পরও চট্টগ্রাম টেস্টে হঠাৎ বিপদের মুখে পড়েছে বাংলাদেশ। ক্যারিবীয় বোলারদের তোপে ৮ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছে তারা।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ২৩০ রান। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে এসেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ৩১ রান নিয়ে ব্যাটিং করছেন।

সৌম্য সরকার দিনের তৃতীয় বলেই আউট হয়ে যান। তিন নাম্বারে মুমিনুল হককে বলতে গেলে ওপেনারের দায়িত্বই পালন করতে হয়েছে। একটার পর একটা জুটি গড়েছেন, দুর্দান্ত এক সেঞ্চুরিও তুলে নিয়েছেন বাংলাদেশের এই লিটল ডায়নামো।

প্রথমে ইমরুল কায়েস, পরে মোহাম্মদ মিঠুন, এবার অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে নিয়ে জুটি গড়েন মুমিনুল। কিন্তু তিনি ফিরতেই যেন তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ইনিংস। ২ উইকেটে ২২২ রান থেকে এক ঝটকায় ৬ উইকেটে ২৩০ রানে পরিণত হয়েছে টাইগাররা।

মুমিনুল হক ১২০ রান করে শেনন গ্যাব্রিয়েলের শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন। তারপর ক্যারিবীয় পেসারের শিকার মুশফিকুর রহীম আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। মুশফিক ৪ রানে এলবিডব্লিউ হন, মাহমুদউল্লাহ করেন ৩ রান।

চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। তবে কুয়াশা ভেজা পিচে শুরুটা যেমন দরকার ছিল, তেমন হয়নি।

দিনের তৃতীয় বলেই শূন্য রানে আউট হয়ে সাজঘরে ফেরেন দীর্ঘদিন পর দলে জায়গা করে নেয়া সৌম্য সরকার। ক্যারিবীয় পেসার কেমার রোচের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে উইকেটের পেছনে ক্যাচ হন বাঁহাতি এই ওপেনার।

দ্বিতীয় উইকেটে অবশ্য সে বিপর্যয় কাটিয়ে উঠেছিলেন ইমরুল কায়েস আর মুমিনুল হক। দুজনে গড়েন ১০৪ রানের বড় জুটি। হাফসেঞ্চুরির একদম দোরগোড়ায় এসে জোমেল ওয়েরিকেনের শিকার হন ইমরুল কায়েস (৪৪), লাঞ্চের ঠিক আগের বলে।

এরপর তৃতীয় উইকেটে মিঠুনকে নিয়ে ৪৭ রানের আরেকটি জুটি গড়েন মুমিনুল। মিঠুনও শেষ পর্যন্ত ভুল করে বসেন। দেবেন্দ্র বিশুকে স্লগ করতে গিয়ে বল উপরে তুলে দেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। উইকেটরক্ষক শেন ডোরিচ ক্রিজের মধ্যে এসে সহজেই তালুবন্দী করেন ক্যাচটি। তাতেই পরিসমাপ্তি তার ২০ রানের ইনিংসটির।

চতুর্থ উইকেটে ক্যারিবীয় বোলারদের বেশ আক্রমণ করে খেলতে থাকেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান আর মুমিনুল হক। মুমিনুল তো তার দুর্দান্ত ফর্ম ধরে রেখে সাগরিকায় টানা তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন। সাকিব-মুমিনুলের জুটিটি ছিল ৬৯ রানের। ওই জুটি ভাঙার পরই বিপদে পড়েছে বাংলাদেশ।