৫ম শ্রেণীর ছাত্রীর হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবীতে মানববন্ধন

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা : মঙ্গলবার গাইবান্ধা শহরের ১ নং রেলগেটে সকাল সাড়ে ১১টায় ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী আঁখি আক্তারকে ধর্ষণ এবং হত্যা করে সেই লাশ গাইবান্ধা সদর উপজেলার রাধাকৃষ্ণপুর ইটভাটার ল্যাট্রিনে ফেলে দেয়ার সঙ্গে জড়িত অপরাধীদের দ্রুত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে এক মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
জানা গেছে, গাইবান্ধা সদর উপজেলার গোদারহাট সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী মোছাঃ আখি আক্তারকে গত ১৩ ফেব্রয়ারি একটি ইট ভাটার ল্যাট্রিন থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করে গাইবান্ধা থানা পুলিশ। এরপর ঐ দিনই পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে একজনকে গ্রেফতার করে। এরপর আটককৃত যুবকের দেয়া স্বীকারোক্তির উপর এবং মৃত আখি’র পরিবারের পক্ষ থেকে সন্দেহভাজনদের নাম গাইবান্ধা থানা পুলিশকে জানানো হয়।
কিন্তু অজ্ঞাত কারণে এখন পর্যন্ত গাইবান্ধা থানা পুলিশ এই চাঞ্চল্যকর হত্যাকান্ডটির সঠিক রহস্য তুলে ধরতে এবং প্রকৃত আসামীদের গ্রেফতারে ব্যর্থ হয়েছে এমনটাই দাবী করে মৃত আঁখিমনীর পরিবার এবং গ্রামবাসী গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুল মান্নান মিয়ার দ্রত হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। নিহত আঁখির পরিবার ও গ্রামবাসীর সাথে মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে পুলিশ প্রশাসনের নিকট আসামীদের দ্রত গ্রেফতার এবং অপরাধীদের ফাঁসির দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট গাইবান্ধা জেলা শাখার সভাপতি আলমগীর কবির বাদল, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ গাইবান্ধা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রিক্তু প্রসাদ, একুশে টিভি’র জেলা প্রতিনিধি আফরোজা লুনা, সংস্কৃতিকর্মী রওশন আরা মুক্তি, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট গাইবান্ধা শাখার প্রকাশনা সম্পাদক শাহজাহান সিরাজ, গণউন্নয়ন কেন্দ্রের প্রতিনিধি মোঃ আবু সাঈদ তুহিন, মামুনুর রশিদ রুবেল, নিহত আঁখিমনীর মা আজেনা বেগম ও দাদী ধলি বেওয়া। এর আগে সকালে আঁখিমনীর স্কুল গোদারহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন সড়কে মানববন্ধনপুর্বক এক সংক্ষিপ্ত আলোচনায় হত্যাকারীদের দ্রত গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি ও সংস্কৃতিকর্মী শাহজাহান সিরাজ, প্রধান শিক্ষক দিপালী খাতুন, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।