১৫ আগস্ট কড়া নিরাপত্তা থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক : আগামী ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের দিন সারা দেশেই কড়া নিরাপত্তা থাকবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। সেদিন কেউ বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করবে না বলেও আশা করছেন তিনি।মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার নিয়ে আন্ত:মন্ত্রণালয় সভা শেষে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।শোক দিবসের দিন ধানমন্ডি ৩২ নম্বর এবং বনানী কবরস্থান এলাকায় কয়েকস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সিসি ক্যামেরা দিয়ে পুরো এলাকাটি আমরা আমাদের নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেব। নিরাপত্তার জন্য সিসি ক্যামেরা যেখানেই প্রয়োজন হবে সেখানেই আমরা ব্যবস্থা করব। র‌্যাবও বিশেষ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবে। নিরাপত্তার জন্য সর্বাধিক গুরুত্ব দেব, যাতে করে কোনো ধরনের দুর্ঘটনা বা কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে।’১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভোরে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের বাড়িতে হামলা করে বঙ্গবন্ধু পরিবারকে হত্যা করে সেনাবাহিনীর বিপথগামী সদস্যরা। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর এই দিনটিকে জাতীয় শোক দিবস হিসেবে পালন করা শুরু হয়। ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে এই আনুষ্ঠানিকতা বাতিল করলেও তাদের শাসনামল শেষে আবারও দিবসটি পালন শুরু হয়।গত দুই বছর ধরে দেশের বিভিন্ন এলাকায় জঙ্গি তৎপরতার প্রেক্ষিতে এবার শোক দিবসে কোনো ধরনের হুমকি আছে কি না-জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যদি কোনো জায়গায় কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চায় সেখানে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী অবশ্যই অবস্থান করবে। আমরা মনে করি সেদিন আর নেই। কোন জায়গায়ই কোনো বিশৃঙ্খলার অবস্থা তৈরি হবে না। কারণ এদেশের সর্বস্তরের জনগণ এটা হৃদয়ে ধারণ করেছে। এই দিবসটি সবাই পালন করবে যথাযথ মর্যাদার সঙ্গে।’মন্ত্রী বলেন, সকল জেলা, উপজেলা এবং যেসব জায়গায় এ অনুষ্ঠান হবে সেখানে প্রয়োজনে আমরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা করব। এটা সার্বজনীন। বাংলাদেশের সর্বস্তরের মানুষ এখানে অংশগ্রহণ করেন। দীর্ঘদিন যাবত এটা একটা প্র্যাকটিসে রূপান্তরিত হয়েছে সারা বাংলাদেশের মানুষের মধ্যে। মানুষ যাতে এটা সুন্দরভাবে করতে পারে নিরাপত্তা বাহিনীর পাশাপাশি আমাদের লোকাল প্রশাসনসহ সবাই এজন্য তৈরি থাকবে এবং সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে।’এদিন বঙ্গবন্ধুর সমাধিস্থল গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়াসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানস্থলে দূর্ঘটনা এড়ানোর জন্য ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা সবসময় তৈরি থাকবেন বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বলেন, ‘দুর্ঘটনা ঘটলে তাদের সর্বশক্তি দিয়ে তারা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। বিভিন্নস্থানে ফায়ার সার্ভিসের রেসকিউ টিম থাকবে। বড় বড় অনুষ্ঠানস্থলে ডাক্তাররাও ক্যাম্প করে সেখানে থাকবেন।’