হামিদা খানম রানু ও সালেহ আহমেদের মৃত্যুতে স্পিকারের শোক

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ফুফু হামিদা খানম রানু ও স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত অভিনেতা সালেহ আহমেদের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

হামিদা খানম রানু বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি শেখ কবির হোসেনের বোন। স্পিকার মরহুমার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

এছাড়া তার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া এবং চিপ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী।

অন্যদিকে এক শোক বার্তায় স্পিকার বলেন, সালেহ আহমেদ ছিলেন বাংলাদেশের বিনোদন জগতের উজ্জ্বল নক্ষত্র। তিনি ছিলেন একাধারে নাট্যকর্মী, অভিনয় শিল্পী এবং বলিষ্ঠ কৌতুক অভিনেতা। তার মৃত্যু এদেশের চলচ্চিত্র ও নাট্যাঙ্গনের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি।

স্পিকার মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করেন।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) বেলা ২টা ৩৩ মিনিটে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন অভিনেতা সালেহ আহমেদ। তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।

উল্লেখ্য, গত জানুয়ারিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চিকিৎসার জন্য সালেহ আহমেদকে সঞ্চয়ীপত্র হিসেবে ২৫ লাখ টাকা অনুদান দেন।