হাতিয়ায় গৃহবধূ খুন, শ্বশুর-শাশুড়ি আটক

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নে শারমিন আক্তার (২০) নামের এক গৃহবধূকে গলাটিপে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে নিহতের স্বামী মোশারফ হোসেন। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের শ্বশুর-শাশুড়িকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সকালে রেহানিয়া গ্রাম থেকে নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত শারমিন আক্তার হাতিয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের আবুল কাশেমের মেয়ে। আটকরা হলেন রফিক ব্যাপারী (৫৭) ও তার স্ত্রী (৪০)।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৬/৭ মাস আগে মোশারফ হোসেনের সঙ্গে বিয়ে হয় শারমিন আক্তারের। সোমবার রাত আটটার দিকে ঘরের ভেতর মোশারফ ও শারমিনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এর কিছুক্ষণ পর ঘর থেকে বের হয়ে যায় মোশারফ। পরে বাড়ির লোকজন ভেতরে গিয়ে শারমিনের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে।

নিহতের বাবা আবুল কাশেম অভিযোগ করে বলেন, বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় মোশারফ শারমিনকে মারধর করত। রাতে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার এক পর্যায়ে মোশারফ শারমিনকে গলাটিপে হত্যা করে পালিয়ে যায়।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান শিকদার জানান, খবর পেয়ে নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ভিকটিমকে তার স্বামী গলাটিপে হত্যা করেছে। ঘটনার পর থেকে নিহতের স্বামী পলাতক রয়েছে।

ওসি আরো জানান, ঘটনায় জড়িত থাকা সন্দেহে নিহতের শ্বশুর-শাশুড়িকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।