স্কুলছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় গাইবান্ধায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

ছাদেকুল ইসলাম রুবেল,গাইবান্ধা: গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের খামার দশলিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে গণধর্ষনের প্রতিবাদে ওই এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিক্ষুব্ধ শিক্ষকরা আজ ২৭ ডিসেম্বর বুধবার গাইবান্ধা আধুনিক হাসপাতালের সামনের সড়কে ধর্ষকদের ফাঁসির দাবিতে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। ওই হাসপাতালে ধর্ষিত ছাত্রীটি বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
মানববন্ধন কর্মসূচী চলাকালে বক্তব্য রাখেন খামার দশলিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোছাঃ নাজমা বেগম, সহকারি শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক মিয়া, মোজাহার আলী, আবু বকর সিদ্দিক, জয়নাল আবেদীন, জহুরুল ইসলাম, প্রভাষক ওমর ফারুক, বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য আব্দুল আজিজ প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, ধর্ষণ ঘটনার সাথে জড়িত এলাকার ৫ চিহ্নিত বখাটের মধ্যে ৩ জনকে স্থানীয় জনগণ আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করলেও অপর দু’জন রুবেল ও খুশিকে এখনও পুলিশ গ্রেফতার করতে পারেনি। তারা অবিলম্বে ওই ২ অপরাধীসহ ৫ লম্পটকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে বিচারের মাধ্যমে তাদের ফাঁসির দাবি জানান। এর আগে মানববন্ধনকারী শিক্ষক ও অভিভাবকরা ধর্ষনকারীদের সর্বোচ শাস্তির দাবীতে জেলা প্রশাসকের কাছে একটি স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।
উল্লেখ্য, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় নলডাঙ্গা বাজার থেকে কাপড় কিনে বাড়ি ফেরার পথে সন্ধ্যায় ওই লম্পট যুবকরা ছাত্রীটিকে জোর করে রাস্তার পাশে আখ ক্ষেতে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে। ধর্ষণের অভিযোগে সোহাগ মিয়া (২১), বাবু মিয়া (২২) ও শরিফুল ইসলাম (২১)কে এলাকাবাসি আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। অপর দুই ধর্ষক রুবেল ও খুশি এখনও পলাতক রয়েছে। ধর্ষক সোহাগ মিয়া নলডাঙ্গা ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক দুদু মিয়ার ছেলে। সাদুল্যাপুর থানায় এব্যাপারে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Inline
Inline