সোনার ব্যবহারে শীর্ষে চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সোনার গয়না কেনা যেমন একটা লাভজনক অভ্যাস, তেমনই কোনও কোনও ক্ষেত্রে হয়তো এটা নেশাও। উপহারেও সোনার গয়না দিতে পছন্দ করেন অনেকে। শুধু সোনার গয়না কেনার জন্য উৎসবও হয় কোথাও কোথাও। পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সোনার গয়না কেনে বেশ কয়েকটি দেশ। জেনে নেয়া যাক সেই দেশগুলো সম্পর্কে।

চীন: সোনার গয়না কেনাকাটিতে শীর্ষে রয়েছে চীন। মোট ৬১২.৫ মেট্রিক টন সোনার গয়না রয়েছে এই দেশের নাগরিকদের কাছে। ২০২৫ সালে গ্লোবাল লাক্সারি মার্কেটের প্রায় ৪৪ শতাংশই চীনের দখলে থাকার কথা, বলছে মার্কিন ম্যানেজমেন্ট সংস্থা ম্যাককিনসে অ্যান্ড কোম্পানি।

ভারত: ৪৬৩.২ মেট্রিক টন সোনার গয়না রয়েছে ভারতে। দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন মন্দিরে দেবতাকে সোনা দান করা হয়, দীপাবলি উৎসবের সময়ে ধনতেরাসেও রয়েছে সোনার গয়না কেনার চল। বিবাহের অনুষ্ঠানেও সোনার গয়না পরার রীতি রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র: এই রাষ্ট্রের নাগরিকদের মধ্যেও রয়েছে গয়নার বিপুল চাহিদা। মোট ১৩৮.২ মেট্রিক টন সোনার গয়না রয়েছে আমেরিকার নাগরিকদের কাছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাত: শুধুমাত্র দুবাইয়ে ৩০০টি সোনার গয়নার দোকান রয়েছে। ৪৬.২ মেট্রিক টন সোনার গয়না রয়েছে আরব আমিরাতের নাগরিকদের কাছে। তবে চাহিদা বেড়ে চলেছে প্রতি মুহূর্তে, এমনটাই বলছে ইতালির ট্রেড কমিশনের সমীক্ষা।

ইরান: ওয়ার্ল্ড গোল্ড কাউন্সিল জানিয়েছে, ইরানে সোনা কেনার চাহিদা শেষ চার বছরে ২৭ শতাংশ বেড়ে গেছে। মোট ৩৯.৭ মেট্রিক টন গয়না রয়েছে ইরানের নাগরিকদের কাছে।

তুরস্ক: ৩৯.৭ মেট্রিক টন সোনা রয়েছে তুরস্কের নাগরিকদের কাছেও। ১৯৯৫ সালে এই দেশে মেটাল মার্কেট তৈরি হওয়ার পর চাহিদা তৈরি হয় নাগরিকদের মধ্যে। বেশিরভাগ সোনাই গচ্ছিত আছে দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংকে।

সৌদি আরব: ৩৮.১ মেট্রিক টন সোনার গয়না রয়েছে সৌদির নাগরিকদের কাছে। সোনার বারের তুলনায় গয়নাই তাদের বেশি পছন্দ।

ইন্দোনেশিয়া: পৃথিবীর অন্যতম বড় সোনার খনি থাকবে, আর সোনার গয়না কেনার ইচ্ছা থাকবে না, তা কখনও হয়? ইন্দোনেশিয়ার নাগরিকদের কাছেও রয়েছে ৩৪.২ মেট্রিক টন সোনা।

রাশিয়া: গত কয়েক বছরে রুশ সেন্ট্রাল ব্যাংকে হলুদ ধাতুটির তৈরি গয়না কম কিছু জমা পড়েনি। ২০১৬ সালেই ৩০.২ মেট্রিক টন সোনা ছিল রুশ নাগরিকদের কাছে, এমনটাই জানানো হয়েছিল ব্যাংকের তরফ থেকে।

মিশর: ১৩০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দের প্যাপিরাসের তৈরি মানচিত্রেও রয়েছে সোনার গয়না মজুত থাকার কথা। মিশরের নাগরিকদের কাছে সব মিলিয়ে ২৭.৫ মেট্রিক টন সোনা রয়েছে।

সূত্র: আনন্দবাজার