সুনামগঞ্জে সাংবাদিকদের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল কিশোরী

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জের মধ্যনগর থানাধীন গ্রামের বাসিন্দা এক কিশোরীর(১৭) গতকাল (শুক্রবার) বিকেলে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পায়। স্থানীয় সাংবাদিকদের হস্তক্ষেপে এই কিশোরীর বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মধ্যনগর থানাধীন বংশিকুন্ডা উওর ইউনিয়নের এক কিশোরীর সঙ্গে একই ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী গ্রামের এক যুবকের(২৬) সঙ্গে গতকাল (শুক্রবার) বিয়ের দিন ধার্য ছিল। বর পক্ষের লোকজনদের স্বাগত জানাতে কনের বাড়ির সামনে গেইট নির্মাণ করাসহ বাড়ির উঠানে আমন্ত্রিত অতিথিদের আপ্যায়নের জন্য সামিয়ানা টানানো হয়।

স্থানীয় এক তরুণের মাধ্যমে। স্থানীয় সাংবাদিকরা এই বাল্য বিয়ের খবরটি জানতে পেরে ওই কিশোরীর বিয়ে বন্ধ করতে তাঁরা সেখানে যান। ওইদিন বেলা সোয়া তিনটার দিকে তাঁরা ওই কিশোরীর বাড়িতে গিয়ে উপস্থিত হন এবং বাল্য বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার সত্যতা পান।

পরে বাল্য বিয়ের কুফল ও রাস্ট্রীয় আইনে বাল্য বিয়ের কোনো স্বীকৃতি নেই এমনটি বুঝিয়ে বলার পর ওই কিশোরীর রড় ভাই বাল্যবিয়ে বন্ধ করতে সম্মত হন। এ সময় ওই কিশোরীর ভাই নিজ বোনের বয়স ১৮বছর পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কোথাও তাকে বিয়ে দেবেন না বলে লিখিতভাবে অঙ্গীকার করেন।

তবে কিশোরীর বাড়িতে সাংবাদিকের উপস্থিতি টের পেয়ে বর ও বরযাত্রীর লোকজন সেখানে আসতে কোনোরকম সাহস দেখায়নি।

বংশিকুন্ডা উওর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য বুরহান আলী শাদু বলেন, ‘সকলের সমন্বিত প্রচেষ্ঠার কারণেই ১৭ বছরের কিশোরী বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেয়েছে।’

Inline
Inline