সুনামগঞ্জে সাংবাদিকতায় ঐক্য ফিরিয়ে আনার তাগিদ দিলেন পীর হাবিবুর রহমান

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক সুনামগঞ্জের কৃতিসন্তান পীর হাবিবুর রহমান হাবিব নিজ উদ্যোগে সুনামগঞ্জের সাংবাদিকতায় ঐক্য ফিরিয়ে আনার জন্য সকল সংবাদকর্মীদের প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, একাধিক পেশায় কর্মরত থেকে একাধিক পদ পদবী ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেকে জাহির করার মধ্যে বাহাদুরী আছে বলে আমি মনে করিনা। সকল পেশাজীবিদেরই নিজ নিজ পেশাদারিত্বের প্রতি খেয়াল রাখা উচিত।

তিনি বলেন, ‘কলকাতায় দলমত ভেদাভেদ ভূলে সকল সাংবাদিকরা এক জায়গায় বসে আড্ডা দেন। সেখানে কোন কোন্দল গ্রুপিং নেই। আমি যখনই কলকাতায় যাই তাদের ঐক্য দেখে উৎসাহিত উদ্বুদ্ধ না হয়ে পারিনা। কিন্তু রাজশাহীতে গেলে সেখানে আমার বসার ইচ্ছে হয়না। আমি যে শহরে জন্ম নিয়েছি সেই জল জোৎস্নার গান কবিতা ও আড্ডা ভালবাসার এই শহরে সাংবাদিকদের মধ্যে অনৈক্য আমাদের কাম্য নয়।’

পীর হাবিবুর রহমান অগ্রজ সাংবাদিকদের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমাদের পূর্ব সূরীদের মধ্যে আবু আলী সাজ্জাদ হোসাইন এত ভাল একজন সাংবাদিক ছিলেন যিনি হাইকোর্টে প্রাকটিস করলে অনায়াসে একজন বিচারপতি কিংবা জাতীয় পত্রিকার সম্পাদক হতে পারতেন। আজকে সুনামগঞ্জের সকল সাংবাদিকদের একত্রে পেয়ে আমি অত্যন্ত আশাবাদী। আমি চাই সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবকে সাংবাদিকদের কর্মক্ষেত্র ও কল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে তুলুন।

শনিবার রাতে শহরের কাজির পয়েন্টস্থিত একটি রেষ্টুরেন্টে সুনামগঞ্জ জেলা শহরে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে এক মত বিনিময় সভায় সিনিয়র সাংবাদিক কলামিস্ট পীর হাবিবুর রহমান হাবিব একথাগুলো বলেন।

অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি বিটিভির জেলা প্রতিনিধি আইনুল ইসলাম বাবলু এডভোকেট, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি লতিফুর রহমান রাজু, সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি ও মোহনা টেলিভিশন প্রতিনিধি কুলেন্দু শেখর দাস, রিপোর্টাস ইউনিটির সহ-সভাপতি প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক ও দৈনিক খবরপত্র পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি আল-হেলাল, সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক হাওরাঞ্চলের কথা পত্রিকার সম্পাদক মাহতাব উদ্দিন তালুকদার, দৈনিক মানবজমিন প্রতিনিধি এ.কে.এম মহিম, প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ দৈনিক সুনামগঞ্জের সময় প্রত্রিকার সম্পাদক সেলিম আহমেদ তালুকদার, দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকা ও মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি এমরানুল হক চৌধুরী, দৈনিক আমাদের অর্থনীতি পত্রিকার প্রতিনিধি সাহাবুদ্দিন আহমদ, দৈনিক সিলেটবানী প্রতিনিধি মাসুক মিয়া, ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশন ও দৈনিক ভোরের কাগজ প্রতিনিধি জাকির হোসেন, দৈনিক মানবকন্ঠ প্রতিনিধি শাহজাহান চৌধুরী, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার প্রতিনিধি মাছুম হেলাল, দৈনিক কাজিরবাজার প্রতিনিধি একে কুদরত পাশা, কালের কন্ঠ প্রতিনিধি শামস শামীম, দৈনিক সুনামগঞ্জের খবর পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার আকরাম উদ্দিন, সময় টিভির প্রতিনিধি হিমাদ্রি শেখর ভদ্র, নিউজ ২৪ ফোর ও ইত্তেফাকের প্রতিনিধি মো. বুরহান উদ্দিন, দৈনিক জালালাবাদ প্রতিনিধি মো. জসীম উদ্দিন, এশিয়ান টিভির জেলা প্রতিনিধি রাজন মাহবুব, দৈনিক মুক্তকণ্ঠের প্রতিনিধি সিরাজুল ইসলাম শ্যামল, দৈনিক আজকালের খবরের প্রতিনিধি মো. আমিনুল হক, দৈনিক সোনালী খবরের প্রতিনিধি মো. ফরিদ মিয়া, চ্যানেল ডিবিসির জেলা প্রতিনিধি আমিনুল ইসলাম, দৈনিক হাওরাঞ্চলের কথা পত্রিকার বার্তা সম্পাদক আলাউর রহমান, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার ও চ্যানেল এস বিডি টিভি’র জেলা প্রতিনিধি ফোয়াদ মনি তালুকদার, বাংলাটিভির জেলা প্রতিনিধি শাহরিয়ার সুমন, নিউজ এম টিভির প্রতিনিধি কেএম শহীদুল, নির্বাহী সদস্য দৈনিক যায়যায়কাল এর প্রতিনিধি মহিবুর রেজা টুনু, সুনামগঞ্জ বিডি নিউজ এর সম্পাদক শামীয়ান তাজুল ও কবি আবুবক্কর সাগর, দৈনিক ভোরের সূর্য জেলা প্রতিনিধি ও সিলেট বিভাগীয় সম্পাদক অনিমেশ দাসসহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার প্রতিনিধিবর্গ।

পরে সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমান হাবিবের সম্মানার্থে মরমী কবি হাছনরাজা ও বাউল কামাল পাশার গান পরিবেশন করেন, শিল্পী সাহাবুদ্দিন ও বাউল গীতিকার আল-হেলাল।

Inline
Inline