সুনামগঞ্জের শাল্লায় জনতা কর্তৃক উপজেলা প. প. কর্মকর্তা লাঞ্ছিত

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা উপজেলায় পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো: জসীম উদ্দিনকে স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগে অনৈতিক পন্থা অবলম্বনের অভিযোগে এবং নিয়োগ পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে উত্তেজিত জনতা গতকাল সোমবার সকালে তার অফিসে ঢুকে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছে।

জানা যায়, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের আওতায় মাঠ পর্যায়ে ৪টি ইউনিয়নে ৩২ জন স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এতে ২২২টি আবেদন জমা পরে, বাছাই শেষে ২০৮ টি আবেদন বৈধ হয়। বৈধ প্রার্থীদের গত ৬ ও ৭ জানুয়ারি ০২ দিনে ভাগ করে ১০০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হয়। মৌখিক পরীক্ষার কমিটিতে উপজেলা পরিষদ চেয়পারম্যান সভাপতি, উপ-পরিচালক, পরিবার পরিকল্পনা, সুনামগঞ্জ সদস্য সচিব, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সদস্য এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও প: প: কর্মকর্তা ও উপজেলা প: প: কর্মকর্তা সদস্য ছিলেন। আনুষ্ঠানিকভাবে ফল প্রকাশের আগেই ৩২টি পদের বিপরীতে কার কার চাকুরী হয়েছে তা মুখে মুখে প্রচার হয়ে পড়ে।
এদিকে গ্রহণকৃত মৌখিক পরীক্ষাকে প্রহসন উল্লেখ করে সোমবার সকালে বেশ কিছু লোক পরিবার পরিকল্পনা অফিসে ঢুকে প: প: কর্মকর্তা মো: জসীম উদ্দিনকে শারীরিক ভাবে লাঞ্ছিত করে। পরে উত্তেজিত জনতা মিছিল মিছিল করে বাজারে যায়। মিছিলটি উপজেলা সদরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এক প্রতিবাদ সভায় মিলিত হয়।

প্রতিবাদ সভায় বক্তারা বলেন- মৌখিক পরীক্ষার আগের দিন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক মোজাম্মেল হক ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন গোপন মিটিং করে দালালের মাধ্যমে মোটা অংকের উৎকোচ গ্রহণ করে ৩২ জনকে চূড়ান্ত করেন। বক্তারা আরো বলেন- ‘শেখ হাসিনার নির্দেশ, দূর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ’ তাই এ প্রহসনের নিয়োগ বাতিল এবং দুর্নীতিবাজদের শাল্লা থেকে প্রত্যাহার করতে হবে।

এব্যাপারে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জসীম উদ্দিন পুরো বিষয়টি অস্বীকার করেন।