সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বিয়ের প্রলোভনে ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে ধর্ষণ, প্রেমিক গ্রেফতার

অনিমেষ দাস, সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ৭ম শ্রেণীর স্কুলছাত্রী বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের মামলায় থানা পুলিশ আরিফ (২৫) নামের এক কথিত প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে। এ ব্যাপারে ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে তার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
গতকাল শনিবার মধ্যরাতে উপজেলার ধুতমা গ্রামে আত্মগোপনে থাকা আরিফকে থানা পুলিশ গ্রেফতার করে। উপজেলা সদর ইউনিয়নের ধুতমা গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে আরিফ(২৫)।
মামলা ও থানা পুলিশ সুত্রে জানা যায়, উপজেলার ধুতমা গ্রামের চতুর আরিফ পার্শ্ববর্তী ইজান জামালগড় গ্রামের ৭ম শ্রেণীতে পড়ুয়া ১৩ বছরের স্কুল ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। এক পর্যায়ে বখাটে আরিফ পালিয়ে বিয়ে করার প্রলোভন দেখিয়ে শুক্রবার রাতে বাড়ি থেকে ফুসলিয়ে নিয়ে যায় ওই স্কুল ছাত্রীকে। পরবর্তীতে আরিফ তার নিজ বাড়িতে ওই স্কুল ছাত্রীকে আটকে রেখে জোড় পূর্বক কয়েকদফা ধর্ষণ করে ভোররাতে গ্রামের অদূরে মাটিয়াইন হাওড়পাড়ে তাকে ফেলে রেখে যায়। পরে পরিবারের লোকজন ও এলাকাবাসী মুমূর্ষ অবস্থায় ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে গেলে সে ধর্ষণের বিষয়টি লোকজনকে জানায়।
এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার ওসি শ্রী নন্দন কান্তি ধর মামলা ও আসামী গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে শনিবার সন্ধ্যায় থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ মধ্যরাতে আরিফকে গ্রেফতার করে।