সিনহার দুর্নীতি প্রসঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবে দুদক, বাইরের কেউ না : চেয়ারম্যান

সদ্য পদত্যাগ করা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার দুর্নীতির বিষয়ে দুদক তদন্ত করবে-আইনমন্ত্রী এমন কথা বললেও সংস্থাটির চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ বলছেন, ‘দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) কোনো দুর্নীতির বিষয় দেখবে কি না সেই সিদ্ধান্ত অন্য কেউ দেবে না। এটা কমিশনের সিদ্ধান্ত। আমার উত্তরটা হচ্ছে, দুদক তার নিজস্ব গতিতে চলবে, দুদক আইন অনুযায়ী চলবে। দুদকের আইনে বলা আছে, দুদক সিদ্ধান্ত নেবে, বাইরের কেউ সিদ্ধান্ত দেবে না।’

রবিবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বিচারপতি সিনহা প্রসঙ্গে প্রশ্নে অনেকটা বিব্রতবোধ করেন দুদক চেয়ারম্যান। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আপনারা স্পেসিফিক যদি কারও ব্যাপারে বলেন, এর উত্তর দেব না। আমার কথা হচ্ছে, স্পেসিফিক কারও ব্যাপারে জিজ্ঞাসা না করাটাই বেটার।’

তবে ইকবাল মাহমুদ বলেন, ‘যদি পাই, যারই হোক না কেন, আমরা দুর্নীতির অনুসন্ধান করব। এটা আমাদের বড় দাগের উত্তর।’

গত ১৩ অক্টোবর এক মাসের ছুটিতে দেশের বাইরে যাওয়ার পরদিন সদ্য পদত্যাগ করা প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বিরুদ্ধে অর্থপাচার, নৈতিক স্খলনসহ বিভিন্ন অভিযোগে কথা জানা যায়।

সুপ্রিম কোর্টের বিবৃতিতে বলা হয়, সিনহার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ রয়েছে এর মধ্যে আছে বিদেশে অর্থ পাচার, আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি, নৈতিক স্খলন প্রভৃতি।

এর একদিন পর ১৫ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, প্রধান বিচারপতির বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে এগুলো দুদকের আওতাধীন। প্রথমে এসব অভিযোগের অনুসন্ধান হবে। অনুসন্ধানে তথ্য-প্রমাণ পাওয়া গেলে মামলা হবে। তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না সেটা রাষ্ট্রপতির এখতিয়ার।