সিদ্দিকুরের চোখে অস্ত্রোপচার আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক : শাহবাগে আন্দোলন করতে গিয়ে ‘পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাসের শেলের আঘাতে’চোখে আঘাত পাওয়া সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমানের চোখে অস্ত্রোপচার করা হবে আজ। ভারতের চেন্নাইয়ের শঙ্কর নেত্রালয়ে এ অস্ত্রোপচার করা হবে।
গতকাল জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. গোলাম মোস্তফা জানিয়েছিলেন শুক্রবার সিদ্দিকুর রহমানের চোখে অস্ত্রোপচার করা হবে। তবে ঠিক কখন করা হবে তা জানতে পারেননি তিনি। দৃষ্টি ফেরানোর আশায় গত ২৭ জুলাই চেন্নাই যান সিদ্দিকুর। তার সঙ্গে গেছেন তার ভাই নায়েব আলী ও চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক ডা. জাহিদুল হাসান। গত সোমবার চেন্নাইয়ের চিকিৎসক সিদ্দিকুর রহমানের চোখ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান, তার দুই চোখই নষ্ট হয়ে গেছে। তবে রোগী চাইলে তারা অস্ত্রোপচার করবেন। রোগীর সম্মতি থাকায় তারা অস্ত্রোপচারের দিন নির্ধারণ করেছেন। অন্তত একটি চোখে সিদ্দিকুর যেন দেখতে পান, সেজন্য চিকিৎসকরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন। চেন্নাইয়ে পাঠানোর আগে সিদ্দিকুর রহমান জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত ২০ জুলাই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভূক্ত সাতটি সরকারি কলেজের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার তারিখ ঘোষণাসহ বিভিন্ন দাবিতে শাহবাগ এলাকায় অবস্থান নেন। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা মিছিল নিয়ে সামনে এগোতে চাইলে পুলিশ তাদের বাধা দেয় এবং তাদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিপেটার পাশাপাশি পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। কাঁদানে গ্যাসের শেল গিয়ে আঘাত হানে সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুরের দুই চোখে। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে ভর্তি করা হয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে। সেখানে তার চোখে অস্ত্রোপচার করা হয়। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সিদ্দিকুর রহমানের চিকিৎসার খরচ বহনের সার্বিক দায়িত্ব নেয় সরকার। এছাড়া তার চোখ ভালো করতে সবচেয়ে ভালো চিকিৎসাসেবা দিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটে দেখতে গিয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও আহত সিদ্দিকুরের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। এরপরই তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ভারতের চেন্নাইয়ে।