সিঙ্গাপুরের নায়িকা নিয়ে মালয়েশিয়া মাতিয়ে দিলেন নিরব

বিনোদন ডেস্ক : ‘বাংলাশিয়া’ নামে মালয়েশিয়ার একটি সিনেমায় পাঁচ বছর আগে অভিনয় করেছিলেন বাংলাদেশের চিত্রনায়ক নিরব হোসেন। এ সিনেমায় নিরবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন সিঙ্গাপুরের তারকা আতিকা সুহাইমি।

ছবিটির শুটিং টানা ৪২ দিন করে শেষ হয়। এরপর ছবিটির ট্রেলারও প্রকাশিত হয়। জাপানের একটি চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি প্রদর্শিত হয়।

এরপর ছবিটির ওপর মালয়েশিয়ার সরকার প্রদর্শনী নিষিদ্ধ করে। শুধু মালয়েশিয়ায় নয়, বিশ্বের কোথাও ছবিটি প্রদর্শন করা যাবে না এরকম একটা আইন হয়।

ছবির ৩১টি দৃশ্য মালয়েশিয়ার সরকারের বিপক্ষে যাওয়ায় সরকার ছবিটির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। বেশ কিছু কাটছাঁটের পর ১২ ফেব্রুয়ারি ছবিটির উপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়। নতুন করে সিনেমার নাম দেয়া হয় ‘বাংলাশিয়া ২.০।’

নিরব অভিনীত ছবিটি অবশেষে মালয়েশিয়ায় মুক্তি পেয়েছে গেল ২৮ ফেব্রুয়ারি। তিন ভাষায় নির্মিত এই ছবি দেশটির ১১১টি সিনেমা হলে একসঙ্গে মুক্তি পায়। পরে সেটি বেড়ে ১১৬ হলে দাঁড়িয়েছে।

ছবির প্রচারণায় অংশ নিতে মালয়েশিয়ায় আছেন নিরব। সেখান থেকে শনিবার তিনি জানান, মুক্তির প্রথম দিনেই ছবিটি আয় করে নিয়েছে বাংলাদেশি টাকায় যা ৪৫ লাখ টাকারও বেশি। ছবিটি দর্শক ও সমালোচকদের প্রশংসা পাচ্ছে।

এই ছবির পরিচালক নেমউই গান। তিনি এর আগে পাঁচটি সিনেমা পরিচালনা করেছেন। তবে তার অতীতের সব রেকর্ড ভেঙ্গেছেন তিনি নিজেই। এর আগে মুক্তি পাওয়া তার ছবি নেসি লেমাক মুক্তির প্রথম দিনে আয় করেছিল ১৭৫০০০ রিঙ্গিত এবং হান্টু গ্যাংস্টার আয় করেছিল ১৮৮০০০ রিঙ্গিত। আর তার ‘বাংলাশিয়া ২.০’ প্রথমদিনে আয় করেছে ২২০০০০ রিঙ্গিত। ছবিটি নিয়ে মালয়েশিয়ান দর্শকদের মধ্যে হৈ চৈ দেখা গেছে বলে জানান নিরব।

তিনি আরও বলেন, ছবিটি মুক্তি উপলক্ষে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ার সানওয়ে টিজিভি সিনেমাস এর ২টি হলে ছবিটির প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হয়। এই শো’তে ছবির কলাকুশলীরাও অংশ নেন।

নিরব বলেন, ‘অভাবনীয়। অভিভূত আমি। দারুণ সাড়া পেয়েছি। এতোটা আশাও করিনি। সিনেমাটি দেখে সংশ্লিষ্টরা খুব প্রশংসা করেছেন। আমার অভিনয় নিয়েও অনেক ইতিবাচক মন্তব্য করেছেন। প্রিমিয়ারে তারা আমাকে বাংলাদেশি ‘এ্যান্ডি লাও’ বলে সম্বোধন করেন। এ্যান্ডি লাও এখানকার সুপারস্টার।’