সাইবার হামলায় ব্রিটেনে স্বাস্থ্যসেবা বন্ধ

বিশ্বের অন্তত ৯৯টি দেশে বড় ধরনের সাইবার হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে বন্ধ হয়ে পড়েছে ব্রিটেনের জরুরি স্বাস্থ্যসেবা।

যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, স্পেন, ইতালি ও তাইওয়ানের গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলো এই হামলার শিকার হয়েছে। বিশেষ করে বড় ধরণের হামলার মুখে পড়েছে যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস। দেশটির হাসপাতালে জরুরি চিকিৎসা সেবা বন্ধ করে রাখতে হয়েছে।

যুক্তরাজ্যের অন্যতম এই রাষ্ট্রায়ত্ত চিকিৎসা সেবা ইউনিটের আইটি নেটওয়ার্ক আক্রান্ত হওয়ায় শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তাদের আওতাধীন হাসপাতাল ও ট্রাস্টগুলোর স্বাভাবিক কার্যক্রম থমকে যায়। ফলে এসব হাসপাতালের কর্মীরা তাদের কম্পিউটারে রোগীদের তথ্য দেখতে পারছিলেন না। রোগীদের নিয়ে আসা অ্যাম্বুলেন্স অন্য হাসপাতালে পাঠাতে হাচ্ছিল। কম্পিউটার সচল না থাকায় অনেক হাসপাতালে জরুরি চিকিৎসা ছাড়া অন্য সব সেবা বন্ধ রাখতে হয়। বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীদের সাক্ষাতের সূচিও বাতিল করা হয়।

এনএইচএস ডিজিটাল এক বিবৃতিতে জানায়, কেবল তারাই এ হামলার শিকার হয়নি। আরও বেশ কিছু সংস্থায় একই ধরনের র‌্যানসমওয়্যারের আক্রমণের খবর তাদের কাছে আছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ডেলিভারি কোম্পানি ফেডএক্সও এই র‌্যানসমওয়্যারের শিকার হওয়ার কথা জানিয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএর তৈরি করা একটি টুল ব্যবহার করে এই সাইবার হামলা চালানো হয়। গত এপ্রিলে শ্যাডো ব্রোকারস নামের হ্যাকাররা ওই প্রযুক্তিটি চুরি করে এবং ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। গত মার্চে এটি ঠেকাতে একটি নিরাপত্তা প্যাচ ছাড়ে মাইক্রোসফট, কিন্তু অনেক কম্পিউটার তাতে আপডেট করা হয়নি।

‘র‍্যানসমওয়্যার’ ছড়িয়ে কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে হ্যাকাররা। এখন পর্যন্ত কেউ সাইবার হামলার দায় শিকার করেনি। নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেতে ডিজিটাল মুদ্রা ‘বিট কয়েনের’ মাধ্যমে ৩০০ ডলার করে চাওয়া হয়েছে।

জানা যাচ্ছে যে, এই র‍্যানসমওয়্যারে বিট কয়েনের যেসব ওয়ালেটে অর্থ জমা দিতে বলা হয়েছে, সেখানে নতুন করে মোটা অর্থ জমা পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।