সরকার আলোর পসরা নিয়ে জনগণের দোরগোড়ায় যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বর্তমান সরকার আলোর পসরা নিয়ে জনগণের দোরগোড়ায় যাচ্ছে। এখন আর বিদ্যুতের জন্য কাউকে ছোটাছুটি করতে হয় না। অফিসে গিয়ে বিদ্যুতের জন্য এখন আর ধর্ণা দিতে হয় না। আমাদের লক্ষ্য সারাদেশ বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত করা।

আজ (বুধবার) সকালে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৬টি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, জাতীয় গ্রিডে সংযুক্ত নতুন ৯টি গ্রিড উপকেন্দ্র, সন্দ্বীপ উপজেলায় বিশেষায়িত বিদ্যুতায়ন এবং ১২টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সন্দ্বীপের হাতিয়ায় সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ লাইন নেয়া হয়েছে। এখানে বিদ্যুৎ গেলে বিনিয়োগ হবে, শিল্পায়ন হবে। আমরা যে ব্লু-ইকোনোমির কথা ভাবছি তা বাস্তবায়নে এই বিদ্যুৎ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

তিনি বলেন, আমরা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি এগিয়েছি। গ্রামের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে গেলে মানুষের নতুন নতুন কর্ম সংস্থান সৃষ্টি হবে। আমার গ্রাম হবে আমার শহর। গ্রামের মানুষের আর শহরে আসার প্রয়োজন হবে না। শহরের সব সুযোগ সুবিধা গ্রামে পৌঁছে যাবে।

এ সময় তিনি আরও বলেন, আশা করছি অল্প কিছু দিনের মধ্যেই আমরা সারাদেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করতে পারবে।

উল্লেখ্য প্রধানমন্ত্রী আজ যে ৬টি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের উদ্বোধন করেছেন তার মধ্যে ভোলায় ২২৫ মেগাওয়াট কমবাইন্ড সার্কেল পাওয়ার প্লান্ট শুধু পিডিবির নিজস্ব উদ্যোগে নির্মিত। বাকি বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সবগুলোই বেসরকারি মালিকানাধীন। এগুলো হচ্ছে- সিরাজগঞ্জে সেম্বকর্প পাওয়ার কোম্পানির ৪১৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ২৮২ মেগাওয়াট প্লান্ট, খুলনার রূপসা নদীর তীরে ওরিয়ন গ্রুপের ১০৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, চাঁদপুরে দেশ এনার্জির ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, চট্টগ্রামের জলদায় একর্ণ ইনফ্রাস্ট্রাকচারের ১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র, এবং ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মিডল্যান্ড ইস্ট পাওয়ারের ১০৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র।