সব কর্মসূচির জন্যই অনুমতি নিতে হবে কেন :ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশ বিনা উসকানিতে হামলা চালিয়ে অসংখ্য নেতাকর্মীকে আহত ও আটক করেছে। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছি। অনুমতি না থাকায় কর্মসূচি পালন করতে দেওয়া হয়নি-পুলিশের এমন বক্তব্যের বিষয়ে তিনি বলেন, সব ধরনের কর্মসূচির অনুমতি নিতে হবে কেন? ফুটপাতে দাঁড়িয়ে কালো পতাকা প্রদর্শন করতে পারব না কেন? এটা তো আমাদের মৌলিক অধিকার। তাহলে কি ঘরের মধ্যে কথা বলতেও পুলিশের অনুমতি লাগবে?

গতকাল শনিবার বিএনপি কার্যালয়ের সামনে পূর্বনির্ধারিত কালো পতাকা কর্মসূচিতে পুলিশি বাধা ও লাঠিপেটার প্রতিবাদে নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তাত্ক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন। ফখরুল বলেন, সরকারই চাইছে আমরা সংঘাত করি। সেজন্য পরিস্থিতি ঘোলাটে করতে অব্যাহতভাবে উসকানি দিচ্ছে। তবে সরকার যতই উসকানি দিক, বিএনপি তাতে কান দেবে না। সংঘাতময় পরিস্থিতি এড়িয়ে চলবে। শান্তিপূর্ণভাবে গণতান্ত্রিক কর্মসূচি পালন করবে। তবে সরকার যে ধরনের আচরণ করছে, তাতে যে কোনো উদ্ভূত পরিস্থিতি তৈরি হলে তার জন্য তারাই দায়ী থাকবে।

বিএনপি নেতা বলেন, সরকারি দলের নেতারা বলছেন, তারা শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে কোনো বাধা দেবে না। কিন্তু কালো পতাকা প্রদর্শনের মতো কর্মসূচিতেও হামলা করে এই সরকার প্রমাণ করেছে, তারা মুনাফেকি গণতন্ত্র চায়। তিনি বলেন, সকালে হঠাত্ করেই সাজসাজ রবে পুলিশ কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়। রঙিন পানি দিয়ে আমাদের ভিজিয়ে দেয়। কার্যালয়ে অবস্থান নিলে সেখানেও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে সেখানে দমবন্ধের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতাদের মধ্যে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আবদুল আউয়াল মিন্টু, রুহুল কবির রিজভী, সৈয়দ মোয়াজেম হোসেন আলাল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।