সবুজ শিল্পায়নে বাংলাদেশ ব্যাপক সংস্কার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে: আমু

ঢাকা, ৪ অক্টোবর, ২০১৮ : সবুজ শিল্পায়নের লক্ষ্য অর্জনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ শিল্পখাতে ব্যাপক সংস্কার কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে।

থাইল্যান্ড সফররত শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বুধবার পঞ্চম সবুজ শিল্প সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত ‘আঞ্চলিক প্রেক্ষাপটে সবুজ শিল্পনীতি’ শীর্ষক প্যানেল আলোচনায় বক্তৃতাকালে এ কথা বলেন।

আজ ঢাকায় প্রাপ্ত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ব্যাংককে অবস্থিত জাতিসংঘ সম্মেলন কেন্দ্রে এ প্যানেল আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে মায়ানমার, লাওস, কম্বোডিয়া, আলবেনিয়া, আর্মেনিয়া, মঙ্গোলিয়া এবং থাইল্যান্ডসহ এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ১৫টি দেশের মন্ত্রীরা আলোচনায় অংশ নেন।
শিল্পমন্ত্রী বলেন, চামড়া ও তৈরি পোশাক শিল্পখাতে সবুজায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে স্বল্প-কার্বন অর্থনীতি গড়ে তোলার জন্য সরকার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কাজ করছে। বাংলাদেশ পরিবেশবান্ধব ১শ’টি অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছে, যেখানে সবুজ শিল্পায়নের জন্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পানি পরিশোধনের মত ইস্যুগুলোকে নিশ্চিত করা হচ্ছে।
আমির হোসেন আমু বলেন, বাংলাদেশে স্বল্প-কার্বন ও সম্পদ-দক্ষ ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পখাতে অর্থায়ন বাড়াতে সরকার অগ্রাধিকারভিত্তিতে কাজ করছে। এ লক্ষ্যে সবুজ অর্থায়ন এবং সবুজ ব্যাংকিং নীতিমালা অনুসরণ করা হচ্ছে। পাশাপাশি তৈরি পোশাক শিল্পের গুণগত মানোন্নয়নে অর্থায়নের ওপর জোর দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, এর ফলে তৈরি পোশাক শিল্পখাতে মূল্য সংযোজন ও পণ্য বৈচিত্রকরণে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘সোনার বাংলা’ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘রূপকল্প-২০২১’ এর আলোকে ‘বাংলাদেশের সবুজ শিল্পায়ন ও টেকসই উন্নয়ন দর্শন’ উজ্জ্বীবিত হয়ে প্রত্যাশিত গন্তব্যের পথে এগিয়ে চলছে।
ব্যাংককে বুধবার থেকে তিন দিনব্যাপী ‘স্থায়ী উন্নয়নের জন্য পঞ্চম সবুজ শিল্প সম্মেলন শুরু হয়েছে। জাতিসংঘ শিল্প উন্নয়ন সংস্থা এবং ইউনাইটেড ন্যাশনস্ ইকোনোমিক অ্যান্ড সোস্যাল কমিশন ফর এশিয়া অ্যান্ড দ্যা প্যাসিফিক যৌথভাবে এর আয়োজন করেছে।

বিকেলে শিল্পমন্ত্রী জাতিসংঘ শিল্প উন্নয়ন সংস্থার (ইউনিডো) মহাপরিচালক লি-ইয়ং এর সাথে বৈঠক করেন। এসকাপ সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে তারা বাংলাদেশের শিল্পখাতে ইউনিডোর সহায়তা জোরদারের বিষয়ে আলোচনা করেন।

বৈঠকে শিল্পমন্ত্রী বাংলাদেশে টেকসই শিল্প উন্নয়নে গত দু’দশক ধরে ইউনিডোর অব্যাহত সহায়তার জন্য মহাপরিচালককে ধন্যবাদ জানান। তিনি বিশেষ করে বিএসটিআইতে আন্তর্জাতিকমানের ন্যাশনাল মেট্রোলজি ল্যাবরেটরি (এনএমএল) স্থাপনের জন্য ইউনিডোর প্রশংসা করেন।

তিনি সাভার চামড়া শিল্পনগরীর কঠিন ও তরল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, সিইটিপি’র আধুনিকায়ন, চামড়া শিল্পের উন্নয়ন এবং সবুজ শিল্পনীতি প্রণয়নে কারিগরি প্রকল্প গ্রহণের জন্য ইউনিডো মহাপরিচালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

ইউনিডোর মহাপরিচালক লি-ইয়ং এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে ৭.৮ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনে বাংলাদেশের প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, স্বল্প-কার্বন প্রবৃদ্ধির ওপর গুরুত্ব দেয়ায় বাংলাদেশের এ অর্জন সম্ভব হয়েছে। তিনি বাংলাদেশের শিল্পখাতে গুণগত মানোন্নয়ন, দক্ষতা বৃদ্ধি, সবুজ শিল্পায়ন এবং আন্তর্জাতিকভাবে গ্রহণযোগ্য শিল্পনীতির বাস্তবায়নে ইউনিডোর সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে জানান।

বৈঠকে থাইল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও এসকাপে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি সাদিয়া মুনা তাসনীম এবং পরিবেশ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এএম মানসুরুল আলম উপস্থিত ছিলেন।

Inline
Inline