সজল-উর্মিলার ‘আয়নাঘর’

বিনোদন ডেস্ক : অনন্যা এবং দীপ্ত দুজন দুজনকে ভালোবাসে। দীপ্ত বড় লোকের ছেলে আর অনন্যা মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে। তাদের ভালোবাসার কথা একসময় দুই পরিবারই জেনে যায়। দীপ্তর বাবা শরাফত বিয়ে পাকাপাকি করার জন্য অনন্যার বাবাকে দেখা করতে বলেন।

খুশির খবরটি পাওয়ার পর অনন্যার বাবা জাহাঙ্গীর দীপ্তর বাবার সঙ্গে দেখা করতে তার অফিসে যান। কিন্তু অফিসে গিয়ে দীপ্তর বাবাকে দেখে চমকে ওঠেন তিনি। তারা দুজনেই পূর্ব পরিচিত।

ঘটনা হচ্ছে, দীপ্তর বাবার সঙ্গে অনন্যার ফুফুর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু দীপ্তর বাবা তাকে ফেলে যাওয়ার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছিলেন। অনন্যার বাবা দীপ্তর বাবাকে দেখার পর সেই পুরোনো কথা মনে পড়ে যায়। বেঁকে বসেন তিনি। অনন্যাকে দীপ্তর সঙ্গে বিয়ে দিতে অস্বীকৃতি জানান।

দীপ্তর বাবা ভয়ে থাকেন, যদি ছেলে তার অতীত অপকর্মের কথা জেনে যায়। তাই তিনি তার সহকর্মী মিজানের মাধ্যমে অনন্যাকে অপহরণ করেন। অনন্যার বাবা বাধা দিতে আসলে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

এদিকে দীপ্ত অনন্যাকে পাগলের মতো খুঁজতে থাকে। অনন্যাদের ভাড়া বাসা থেকে শুরু করে যেসব জায়গায় তারা দেখা করত সবখানে খুঁজতে থাকে। কিন্তু অনন্যাকে কোথাও খুঁজে পায় না। একসময় দীপ্ত মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলে। ঘটতে থাকে বিচিত্র সব ঘটনা।

এমন চমকপ্রদ কাহিনি নিয়েই নির্মিত হয়েছে নাটক ‘আয়নাঘর’। মাহবুব করিমের গল্পে নাটকটির নাট্যরূপ করেছেন হাসি ইকবাল। এটি পরিচালনা করেছেন ইকবাল ইব্রাহিম পলাশ। নাটকে দীপ্ত চরিত্রে আব্দুন নূর সজল ও অনন্যা চরিত্রে উর্মিলা শ্রাবন্তী কর অভিনয় করেছেন।

এর বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন আব্দুল হান্নান শেলী, শাহেলা আক্তার, লায়ন মোঃ জসিম উদ্দিন ও মোঃ শাহজাহান (মিজান) প্রমুখ। আগামী ৮ সেপ্টেম্বর, শনিবার রাত ৮টায় নাটকটি আরটিভিতে প্রচারিত হবে।