শ্রীপুরে রিতা হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে ছাত্র-ছাত্রীদের মানববন্ধন

আশিকুল ইসলাম, শ্রীপুর (গাজীপুর) থেকে : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার নতুন পটকা গ্রামের রিতা আক্তার(২৩) হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় স্কুল ও কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা।

বৃহস্পতিবার (০৬ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে ১০টা পর্যন্ত শ্রীপুর সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০১৩ সালের এস এস সি ব্যাচের ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্যোগে স্কুলের গেইটের সামনে শ্রীপুর-গোসিংগা সড়কে রিতা হত্যায় জড়িতদের ফাঁসির দাবিতে ব্যানার ও হাতে লেখা প্লেকার্ড নিয়ে রাস্তার পাশে এক ঘন্টা মানববন্ধন করেছে স্কুলের সকল ছাত্র-ছাত্রীরা।

অন্যদিকে, শ্রীপুর মুক্তিযোদ্ধা সরকারি রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা একই দাবীতে কলেজের গেটের সামনে সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত মানববন্ধন করে। এক ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন শেষে শ্রীপুর সরকারি মুক্তিযোদ্ধা রহমত আলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের সামনে দাঁড়িয়ে আধাঘন্টা মানববন্ধন পালন করে এবং রিতা হত্যায় জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় এনে ফাঁসির দাবি করেন ছাত্র-ছাত্রীরা।

পরে তারা শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রেহেনা আকতারের সাথে দেখা করে সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সুষ্ঠ বিচার দাবী করেন।

এসময় উপজেলা কর্মকতা সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দ্রুত আসামিদের গ্রেফতার ও সুষ্ঠু বিচারের আশ্বস্ত করলে ছাত্র-ছাত্রীরা নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে যান।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদুল ইসলাম জানান, এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় মামলা রুজু হয়েছে। ইতিমধ্যেই রিতার শ্বাশুড়ী ও ননদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

প্রষঙ্গত, উপজেলার নতুন পটকা গ্রামের রোকন ফকিরের মেয়ে রিতা আক্তার প্রায় তিন বছর আগে একই উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে কাতার প্রবাসী আসাদুলের সাথে তাঁর বিয়ে হয়। গত বুধবার (২৮ নভেম্বর) রাতে টয়লেট থেকে ফেরার সময় ভাসুর ও শ্বাশুড়ী মারপিট করে রিতার গায়ে থাকা কাপড়ে আগুন ধরিয়ে দেয় হয় বলে অভিযোগ করেছেন রিতার বাবা। এসময় সে প্রাণে বাঁচতে চিৎকার করলেও শ্বশুরবাড়ির কেউ এগিয়ে আসেনি। অবশেষে পাঁচদিন হাসপাতালের বিছানায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে মারা যায়।