শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত মন্ত্রী ছায়েদুল

সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছায়েদুল হক। তিন দফা জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁকে দাফন করা হয়।

রবিবার বেলা সাড়ে ১২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের আশুতোষ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে রাষ্ট্রীয় সালাম ও গার্ড অব অনার দেয়া হয়। এসময় বিউগলে বেজে ওঠে করুণ সুর। লাল-সবুজের জাতীয় পতাকায় মুড়ে দেয়া হয় কফিন। গার্ড অব অনার শেষে এ মাঠেই তাঁর দ্বিতীয় নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানাজায় মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন স্থান থেকে আসা সর্বস্তরের মানুষ জানাজায় অংশগ্রহণ করেন।

জানাজায় শেষে মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রতি নানা শ্রেণি পেশার মানুষ ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান। সর্বজন শ্রদ্ধেয়, সৎ মানুষ হিসেবে খ্যাত প্রিয় নেতা ছায়েদুল হককে তারা ভালোবাসা ও অশ্রুসজল চোখে বিদায় জানান।

পরিবারের পক্ষ থেকে প্রয়াত মন্ত্রীর একমাত্র পুত্র ডাক্তার এ এস এম রায়হানুল হক জানাজায় অংশ নেয়া সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান এবং তাঁর পিতার আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া চান।

মন্ত্রীর শেষ যাত্রায় অংশ নেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মতিন খসরু, পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র.আ.ম.উবায়দুল মোক্তাদির চৌধুরী, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম, সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা, আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সফিকুল আলম, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সৈয়দ একে একরামুজ্জামান, সাবেক উপ-মন্ত্রী অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকার প্রমূখ।
তাঁর জম্মস্থান উপজেলার পূর্বভাগ হাই স্কুল মাঠে বাদ জোহর তৃতীয় দফা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। পরে পারিবারিক কবরস্থানে মা-বাবার কবরের পাশে তাঁকে চিরনিদ্রায় সমাহিত করা হয়।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকের প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয় জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায়। সেখানে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী তাঁর কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল শনিবার সকাল সাড়ে ৮টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তিনি আওয়ামী লীগের টিকিটে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের একজন সংগঠক ছিলেন।