শেখ কামাল এর ৭০তম জন্মদিনে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের বিভিন্ন কর্মসূচি পালন

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর জ্যেষ্ঠ পুত্র বীরমুক্তিযোদ্ধা শেখ কামাল-এর ৭০তম জন্মদিন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের উদ্যোগে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ৫১, ৫১/এ পুরানা পল্টন, ঢাকায় রবিবার (৫ আগস্ট) বিকাল ৪টায় আলোচনা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৩তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস-২০১৮ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের চলমান মাসব্যাপি কর্মসূচির অংশ হিসেবে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ স্বাধীনতা পরিষদের সভাপতি মোঃ জিন্নাত আলী খান জিন্নাহ, জাতীয় গণতান্ত্রিক লীগ এর সভাপতি এম.এ. জলিল, রুর‌্যাল জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশন (আরজেএফ)’র চেয়ারম্যান এস এম জহিরুল ইসলাম, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার মহাসচিব আবুল বাশার মজুমদার, সংগঠনের সদস্য লায়ন খান আখতারুজ্জামান, লায়ন আব্দুল মজিদ খান, কবি আবুল বাসার কুদ্দুস, আওয়ামী লীগ নেতা ফরিদ খান, সাপ্তাহিক বিচিত্র অপরাধ বার্তার সম্পাদক পলাশ চৌধুরী প্রমুখ।
সভাপতির বক্তব্যে লায়ন মোঃ গনি মিয়া বাবুল বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জ্যেষ্ঠ পুত্র শেখ কামাল স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়াঙ্গণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন, যা বাংলাদেশের ইতিহাসে চিরদিন অম্লান হয়ে থাকবে। তিনি আবাহনী ক্লাব ও ঢাকা থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন। তিনি একজন দক্ষ সমাজ, সাংস্কৃতি ও ক্রীড়া সংগঠক ছিলেন। তিনি নিরহংকার, নির্লোভ, মেধাবী ও দেশপ্রেমিক একজন তরুণ ছিলেন। কিন্তু জাতির দুর্ভাগ্য ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে সপরিবারে তাকে হত্যা করা হয়।
তিনি আরো বলেন, বর্তমান তরুণ প্রজন্মকে শেখ কামালের আদর্শ-গুণাবলী অনুসরণ-অনুকরণ এবং হৃদয়ে ধারণ করা অপরিহার্য।
আলোচনা শেষে শেখ কামাল ও বঙ্গবন্ধুসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফেরাত ও দেশ-জাতির সমৃদ্ধি কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।(খবর বিজ্ঞপ্তি)