শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে ভয়াবহ বিপদ: রিজভী

সহনীয় মাত্রায় ঘুষ খাওয়ার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের বক্তব্যে ভয়াবহ বিপদ দেখছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বিএনপি নেতা বলেছেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্যে জাতির হৃদয়ের স্পন্দনকে থামিয়ে দেয়ার সামিল। দেশে বিদ্যমান নৈরাজ্যকর অমানিষার মধ্যে তার এই বক্তব্য দেশের জন্য আরো ভয়াবহ উদ্বেগ, ভয় ও বিপদের কারণ হতে পারে।’

শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যের পর দিন সোমবার নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন রিজভী। এ সময় তিনি এসব কথা বলেন।

রবিবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে শিক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীদের সহনীয় মাত্রায় ঘুষ খাওয়ার পরামর্শ দেন শিক্ষামন্ত্রী। নাহিদ বলেন, ‘আপনাদের প্রতি আমার অনুরোধ, আপনারা ঘুষ খাবেন, তবে সহনশীল হইয়া খাবেন, সহনশীল হইয়া মানে এই নয় যে আপনারা ঘুষ খাইয়েন না, এটা অর্থহীন কথা হবে।’

মন্ত্রী আরও বলেন, ‘মন্ত্রীরা দুর্নীতি করে, শুধু যে অফিসার চোর তাই না মন্ত্রীরাও চোর, আমিও চোর, তাই ঘুষ না নিতে বলার সাহস আমার নাই।’

ঘুষ-দুর্নীতির কাছে মন্ত্রীর নতি স্বীকার করে এই বক্তব্য এরই মধ্যে তোলপাড় ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। তীব্র সমালোচনা করেছে বিএনপিও।

রিজভী বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে প্রমাণিত হলো-বর্তমান সরকার আত্মস্বীকৃত চোর ও দুর্নীতিবাজ। দেশে যে জঙ্গলের রাজত্ব চলছে শিক্ষামন্ত্রীর বক্তব্যে সেটিরই বহি:প্রকাশ ঘটেছে।’

শিক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্যে ভবিষ্যত প্রজন্মের মধ্যে নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে বলে শঙ্কিত রিজভী। তিনি বলেন, ‘শিক্ষামন্ত্রীর যদি এই বক্তব্য হয়, তাহলে কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা সততা, নৈতিকতার পাঠ কোথায় নেবে?’।

‘তাঁর বক্তব্যে এটাই ফুটে উঠছে যে, ছাত্র-ছাত্রীরা তোমরা নীতি, নৈতিকতা, আদর্শ এবং ন্যায়বোধের বিবেকশাসিত উন্নত মানুষ হওয়ার বদলে তোমরা সহনীয় মাত্রায় দুর্নীতির পাঠ নিতে শেখো, তাহলেই তোমাদের সাফল্য আসবে।’

রিজভী মনে করেন শিক্ষামন্ত্রীর চাইছেন ছাত্র-ছাত্রীদেরা জ্ঞানদীপ্ত প্রকৃত শিক্ষার আলোয় আদর্শ জীবন গঠনে উদ্বুদ্ধ না হয়ে দুর্নীতি, দখলবাজি, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাস, দলবাজি, দুর্বৃত্তপনা, ইভটিজিং, মাদকসহ লুটপাট করার অর্থবিত্তের কাছে নতি স্বীকার করতে শিখুক।

প্রশ্নপত্র ফাঁসেও মন্ত্রীর ব্যর্থতা এবং তার নিজের সম্পৃক্ততার অভিযোগও করেন রিজভী। বলেন, শিক্ষামন্ত্রী নিজেদের লোকদেরকে প্রশ্ন এই কেনা বেচার সুযোগ করে দিয়েছেন সুকৌশলে।

‘মিডিয়ার বদৌলতে এই প্রশ্নফাঁস কেলেঙ্কারির সাথে যারা জড়িত তারা সরকারেরই মায়ামুগ্ধ ছাত্রলীগের সোনার সন্তানেরা। শিক্ষামন্ত্রীর কথায় মনে হচ্ছে, তিনিই এসব কেলেঙ্কারির উৎসাহদাতা।’

জাতিকে মেধাহীন করতে শিক্ষামন্ত্রী প্রশ্নপত্র ফাঁসসহ দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে ধ্বংস করতে চাইছেন বলেও অভিযোগ রিজভী।