শতভাগ বিদ্যুতায়নের পথে নাটোর ও রাজশাহীর ১২টি উপজেলা

নাটোর, ১৭ জুন, ২০১৮ : উন্নয়নের বাতিঘর হিসেবে কাজ করছে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ও নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২। ইতোমধ্যে দু’টি সমিতিভুক্ত নাটোর ও রাজশাহী জেলার ছয়টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ শেষ হয়েছে। দু’টি সমিতির অধীনে দুই জেলার অবশিষ্ট ৬টি উপজেলা অচিরেই শতভাগ বিদ্যুতায়নের মাইলফলক স্পর্শ করতে যাচ্ছে। বিগত ৯ বছর ধরে নতুন নতুন বিদ্যুৎ সংযোগের ফলে এসব এলাকার জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন হয়েছে এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রমে এসেছে গতিশীলতা।
নাটোর শহরের ফুলবাগানে ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠার পর নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বিদ্যুতায়ন কার্যক্রম শুরু হয় ১৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৮১। নাটোর জেলার নাটোর সদর, সিংড়া, নলডাঙ্গা ও বাগাতিপাড়া উপজেলা এবং রাজশাহী জেলার পুঠিয়া ও বাগমারা উপজেলার ৫২টি ইউনিয়নের ১ হাজার ২১৪টি গ্রামের ১৫ লক্ষাধিক বাসিন্দার জীবন ধারাকে আলোকিত করে চলেছে এই সমিতি। নিজস্ব বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণের পর বিদ্যুতায়ন, অধিগ্রহণকৃত এবং নবায়নকৃত মোট ৬ হাজার ৪৭৪ কিলোমিটার বিদ্যুতায়িত লাইনে আবাসিক, বাণিজ্যিক, শিল্প, সেচ ও রাস্তার বাতি ক্যাটাগরিতে মোট সংযুক্ত গ্রাহকের সংখ্যা ৩ লাখ ২৮ হাজার ১১৯।
অন্যদিকে নাটোরের বনপাড়া থেকে পরিচালিত নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর কার্যক্ষেত্র নাটোরের বড়াইগ্রাম, গুরুদাসপুর, লালপুর, বাগাতিপাড়া (আংশিক) এবং রাজশাহী জেলার বাঘা ও চারঘাট উপজেলা। ৬টি উপজেলায় এ পর্যন্ত ৪ হাজার ৯ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে ৩ লাখ ৬৯১ সংযোগ প্রদান করেছে। এরমধ্যে জানুয়ারি ২০০৯ থেকে এপ্রিল ২০১৮-এই ৯ বছরে দেড় হাজার কিলোমিটার লাইন নির্মাণ করে দুই লাখ ৮ হাজার সংযোগ প্রদান করা হয়েছে।
নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ ও নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ যৌথভাবে মোট ৫৭৪ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে ৩৪ হাজার ৩৬৪ গ্রাহক সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ শেষ করলে গত ১২ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ৫২২ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে মোট ২৯ হাজার ৭৩১ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা এবং ৯৬১ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে মোট ৫৩ হাজার ৪১৬ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলা শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজও সম্প্রতি শেষ হয়েছে বলে জানান সমিতির সহকারী মহাব্যবস্থাপক মোঃ নূর-এ-আলম।
নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর শতভাগ বিদ্যুতায়নের পরবর্তী গন্তব্য নাটোর সদর উপজেলা এবং সিংড়া উপজেলা। বর্তমানে নাটোর সদরে ১ হাজার ৪৩ কিলোমিটার লাইন নির্মাণের মাধ্যমে ৭৮ হাজার ৩৭২ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সুবিধা প্রদান করা হচ্ছে। আগামী মাস অর্থাৎ জুনের মধ্যে নাটোর সদর উপজেলায় অবশিষ্ট ৩৬ কিলোমিটার নতুন বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে সম্ভাব্য এক হাজার ৮০০ গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ এবং সিংড়া উপজেলায় ২৮৪ কিলোমিটার নতুন বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে সম্ভাব্য ১৪ হাজার ২০০ গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে শতভাগ বিদ্যুতায়নের লক্ষ্যে পৌঁছতে যাচ্ছে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১।
সমিতির শতভাগ বিদ্যুতায়নের সর্বশেষ গন্তব্য রাজশাহীর বাগমারা উপজেলা। বর্তমানে এই উপজেলায় ১ হাজার ২৩৫ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইনে গ্রাহক সংখ্যা ৭৬ হাজার ১৩৩ জন। আগামী সেপ্টেম্বরের মধ্যে বাগমারা উপজেলায় ৩৬৪ কিলোমিটার নতুন বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে সম্ভাব্য ১৮ হাজার ২০০ গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে শতভাগ বিদ্যুতায়নের চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছতে যাচ্ছে নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১।
অন্যদিকে, নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর অন্তর্ভুক্ত রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলা এলাকায় ৫৯৫ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে মোট ৪৪ হাজার ৯৪৬ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান এবং ৭২৯ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন নির্মাণ করে মোট ৬১ হাজার ৮৫৯ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে রাজশাহীর চারঘাট উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাজ সম্প্রতি শেষ হয়েছে বলে জানান সমিতির সহকারী মহাব্যবস্থাপক গোলাম ইখতিয়ার তাজু।
নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর শতভাগ বিদ্যুতায়নের পরবর্ত্তী গন্তব্য নাটোরের বড়াইগ্রাম, গুরুদাসপুর ও লালপুর উপজেলা। এই তিনটি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়নের মাইলফলক স্পর্শ করতে মোট নয় হাজার সংযোগ প্রদান বাকী রয়েছে। বর্তমানে বড়াইগ্রাম উপজেলায় ৬৮৫ কিলোমিটার লাইন নির্মাণের মাধ্যমে ৬৭ হাজার ১২৯ জন গ্রাহককে, গুরুদাসপুর উপজেলায় ৬৮৫ কিলোমিটার লাইন নির্মাণের মাধ্যমে ৬২ হাজার ১৪১ জন গ্রাহককে এবং লালপুর উপজেলায় ৮০৯ কিলোমিটার লাইন নির্মাণের মাধ্যমে ৫৭ হাজার ২২৩ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সুবিধা দিয়ে আসছে এই সমিতি। চলতি অর্থ বছরের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়নের কাক্সিক্ষত লক্ষ্যে পৌঁছতে সমিতি সব রকমের কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে বলে জানান নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর মহাব্যবস্থাপক নিতাই চন্দ্র সরকার। তিনি বলেন, আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের বাতিঘর হিসেবে কাজ করছে সমিতি।