লাস পালমাসের বিপক্ষে মাঠে নামছে বার্সেলোনা

শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে অনেকটা এগিয়ে থাকলেও আনন্দে গা ভাসিয়ে দিতে চায় না বার্সা। এ কারণেই দুর্বল প্রতিপক্ষ লাস পালমাসের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়েও বেশ সতর্ক কাতালুনিয়ার ক্লাবটি। পালমাসের মাঠে আগামী শনিবার স্পেনের শীর্ষ লিগের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায়।

এই ম্যাচে নামার আগে ২৪ ম্যাচ শেষে ৬০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে বার্সেলোনা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের চেয়ে ৬ পয়েন্ট এগিয়ে তারা। শিরোপার আরেক দাবিদার তৃতীয় স্থানে থাকা রিয়ালের পয়েন্ট ৫৩।

অন্যদিকে ২৪ ম্যাচে ২১ পয়েন্ট নিয়ে পালমাস আছে তালিকার অষ্টাদশ স্থানে। লিগে সবশেষ পাঁচ ম্যাচের চারটিতেই হেরেছে তারা।

সম্প্রতি স্পেনের ক্লাবগুলোর মধ্যে টানা অপরাজিত থাকার নিজেদের রেকর্ড ভাঙা বার্সেলোনার খেলোয়াড়রাও ভালো করেই জানে, এ ম্যাচে তারাই ফেভারিট। তবে পালমাস ম্যাচের আগে তাদের কন্ঠে শুধুই মনোযোগ ধরে রাখার কথা শোনা যাচ্ছে।

বার্সেলোনা ডিফেন্ডার আলেইশ ভিদাল সতীর্থদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘আমি ছোট দলের হয়ে খেলেছি, যেখানে লক্ষ্য হচ্ছে উপরের দিকে থাকা। আর বড় দলগুলোর বিপক্ষে ম্যাচে তাদের থাকে বাড়তি অনুপ্রেরণা’।

গত বুধবার স্পোর্তিং গিহনের বিপক্ষে জয়ের পর বার্সেলোনা মিডফিল্ডার ইভান রাকিতিচও নিজেদের সতর্ক থাকার কথাই বলেছিলেন।

‘লিগ শেষ হতে এখনও লম্বা পথ বাকি। এখনও কিছুই ঠিক হয়ে যায়নি। আমরা সবাই যেটা করতে পারি তা হলো সপ্তাহান্তের ম্যাচে মনোযোগ দেওয়া’।

১৯৮৬ সালের পর বার্সেলোনা পালমাসের কাছে লিগে আর কোনো ম্যাচ হারেনি। ৩-০ গোলের সেই হারের পর স্পেনের শীর্ষ লিগে ৯ বার পালমাসের মুখোমুখি হয়েছে বার্সেলোনা। এর মধ্যে ৫টিতে জেতে তারা, চারটি ম্যাচ হয় ড্র।

অন্যদিকে, লা লিগায় প্রতিপক্ষের মাঠে সবশেষ খেলা ৬ ম্যাচের কোনোটিতে হারেনি বার্সেলোনা। এর মধ্যে চারটিতে জিতেছে তারা, দুটি করেছে ড্র। আর এই ছয় ম্যাচে দুটি মাত্র গোল খেয়েছে কাতালুনিয়ার ক্লাবটি।

এই সব পরিসংখ্যানের মাঝে ভিদাল সবাইকে একটি বাস্তবতা স্মরণ করিয়ে দেন, কোনো প্রতিপক্ষের বিপক্ষে জয় পাওয়াই সহজ নয়।

বার্সেলোনা-পালমাসের সবশেষ লড়াইটিও ভিদালের কথাকেই সমর্থন করে। গত সেপ্টেম্বরে নিজেদের মাঠে লিগের প্রথম পর্বের ম্যাচটি জিততে বার্সেলোনাকে বেশ ঘাম ঝরাতে হয়েছিল। লুইস সুয়ারেসের জোড়া গোলে ম্যাচটি ২-১ ব্যবধানে জিতেছিল বার্সেলোনা।

Inline
Inline