রোহিঙ্গা ক্যাম্পে চাকরির দাবিতে বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

কক্সবাজার সংবাদদাতা : চাকরির দাবিতে আগের দেয়া আলটিমেটাম শেষে রাস্তায় নেমেছেন কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার স্থানীয় বাসিন্দারা। তাদের সড়ক অবরোধ ও বাধার মুখে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যেতে পারেননি এনজিও কর্মীবাহী যানবাহন।

সোমবার সকাল থেকে চাকরির দাবিতে কক্সবাজার-টেকনাফ আরকান সড়কের কোটবাজারে অবরোধে নামেন স্থানীয়রা। এ সময় রোহিঙ্গা ক্যাম্পমুখী এনজিওদের শত শত গাড়ি ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষার পর অবরোধ পার হতে ব্যর্থ হয়ে ফেরত যায়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আন্দোলনকারীদের লাঠিচার্জ করলেও কোনো কাজ হয়নি। এ সময় অবরোধকারীদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়েছেন।

প্রায় তিন ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকার পর কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তাহিয়ান আদনান ও উখিয়ার অ্যাসিল্যান্ড ফখরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে এসে আন্দোলনকারীদের চাকরির আশ্বাস দিলে অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়।

আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এনজিওতে বিদেশির পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন প্রান্তের লোকজন চাকরি পেলেও স্থানীয়রা নানাভাবে উপেক্ষিত। অথচ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিতে গিয়ে চরম ক্ষতিগ্রস্ত স্থানীয়রা। আগে নানা দেনদরবার ও তদবিরে কিছু স্থানীয় ব্যক্তি চাকরি পেলেও অধিকাংশকে কৌশলে বের করে দেয়া হয়। তাদের স্থলে কিছু রোহিঙ্গা ও ভিন্ন জেলার লোকজনকে এনে কাজ করানো হচ্ছে। এতে কর্মহীন হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানান, চাকরির দাবিতে গত দুই মাস ধরে আন্দোলন করে আসছেন স্থানীয়রা। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বারবার চাকরির আশ্বাস দেয়া হলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে রাস্তায় নেমেছেন তারা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে উখিয়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) নুরুল ইসলাম বলেন, চাকরির দাবিতে সকাল থেকে স্থানীয়রা রাস্তায় অবরোধ দিয়ে আন্দোলন করে। চাকরির আশ্বাস দিলে তিন ঘণ্টা পরে অবরোধ তুলে নেয় তারা।