রোহিঙ্গাদের জন্য ৫ হাজার একর জমি বরাদ্দের পরিকল্পনা

ডেস্ক রিপোর্ট : মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী আশ্রয়ের জন্য পাঁচ হাজার একর জমি বরাদ্দের পরিকল্পনা করছে সরকার। জেলার কুতুপালং এলাকায় এ জায়গা বরাদ্দ দেয়া হতে পারে।
শুক্রবার ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া রোহিঙ্গাদের সার্বিক অবস্থা পরিদর্শনে কক্সবাজার যান। সেখানে বিকাল সাড়ে ৫ টায় ক্যাম্পে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদেরকে পাঠিয়েছেন রোহিঙ্গাদের অবস্থান পর্যবেক্ষণ করতে। আন্তর্জাতিকভাবে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করে এ সমস্যার সমাধান করা হবে।
মন্ত্রী এসময় মানচিত্রের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের জন্য বরাদ্দ করার সম্ভাব্য জায়গাটি দেখেন।
প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর কথিত জঙ্গিবিরোধী অভিযানের জের ধরে ইতোমধ্যে সেখানে হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গার মৃত্যু হয়েছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে তিন লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করেছে। নতুন করে আসা বিপুল সংখ্যক এ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে বাংলাদেশ। তারা যাতে ছড়িয়ে ছিটিয়ে না পড়ে সে ব্যাপারে কাজ শুরু করেছে সরকার। এর জন্য তাদের  অস্থায়ীভাবে নির্দিষ্ট জায়গায় রাখার চেষ্টা হচ্ছে।
রোহিঙ্গা শরণার্থী পরিদর্শনে ত্রাণ মন্ত্রীর সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী পরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম, দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনা সচিব শাহ কামাল, উখিয়া-টেকনাফের সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি, কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনের এমপি আশেক উল্লাহ রফিক, কক্সবাজার জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন, পুলিশ সুপার ড. একেএম ইকবাল হোসেন, উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।