রোববার থেকে প্রাথমিক-ইবতেদায়ি সমাপনীতে বসছে ৩১ লাখ শিক্ষার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হচ্ছে আগামী রোববার (১৮ নভেম্বর)। গত বছরের তুলনায় এবার প্রাথমিক সমাপনীতে পরীক্ষার্থী ২৮ হাজার ৮২৬ জন কমেছে, অপরদিকে ইবতেদায়িতে ২৩ হাজার ৪৭২ জন বেড়েছে।

এবার দুটি পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ৩০ লাখ ৯৫ হাজার ১২৩ জন। এরমধ্যে প্রাথমিক সমাপনীতে ২৭ লাখ ৭৭ হাজার ২৭০ জন ও ইবতেদায়িতে তিন লাখ ১৭ হাজার ৮৫৩ জন।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান (ফিজার) এসব তথ্য জানান।

দুটি পরীক্ষায় ছাত্রের চেয়ে ছাত্রী দুই লাখ ১৯ হাজার ৭৮৬ জন বেশি জানিয়ে গণশিক্ষা মন্ত্রী বলেন, ‘প্রাথমিক সমাপনীতে পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ১২ লাখ ৭৮ হাজার ৭৪২ জন ছাত্র এবং ১৪ লাখ ৯৮ হাজার ৫২৮ জন ছাত্রী। ইবতেদায়ি সমাপনীতে ছাত্র এক লাখ ৬৬ হাজার ৮১৪ জন এবং ছাত্রী এক লাখ ৫১ হাজার ৩৯ জন।’

প্রাথমিক সমাপনীতে তিন হাজার ৬৩ ও ইবতেদায়িতে ২৩১ জনসহ মোট ৩ হাজার ২৯৪ বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন (অটিস্টিক) পরীক্ষার্থী অংশ নেবে বলেও জানান ফিজার।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী দেশের সবচেয়ে বড় পরীক্ষা জানিয়ে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘সারাদেশে সাত হাজার ৪১০টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এরমধ্যে দেশের বাইরে ১২টি কেন্দ্রে পরীক্ষা নেয়া হবে।’

এবার পরীক্ষায় বহু নির্বাচনী প্রশ্ন (এমসিকিউ) থাকছে না বলেও জানান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী।

মন্ত্রী জানান, প্রতিটি পরীক্ষা সকাল সাড়ে ১০টা থেকে শুরু হবে। পরীক্ষার মোট সময় তিন ঘণ্টা। তবে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় বেশি রাখা হয়েছে। পরীক্ষা শেষ হবে ২৬ নভেম্বর।

পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মোট ছয়টি বিষয়ের প্রতিটিতে ১০০ করে মোট ৬০০ নম্বরের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।’

অন্যান্য বছরের মধ্যে এবারও পরীক্ষার ফল ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে প্রকাশিত হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘নির্বাচনের দিন নিশ্চয়ই আমরা ফলাফল দেব না।’

পরীক্ষার সময় কোচিং বন্ধ

পরীক্ষার চলাকালীন কোচিং বন্ধ রাখার জন্য ইতোমধ্যে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে জানিয়ে গণশিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘এজন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অলরেডি নির্দেশনা দিয়েছি। পরীক্ষাটাকে কোন প্রশ্নবিদ্ধ করতে দেব না।’

কবে থেকে কোচিং বন্ধ থাকবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সব তো বলার দরকার নেই।’ মেজার নেয়া হয়েছে এইটুকুই।’

২০০৯ সালে প্রথম প্রাথমিক সমাপনী শুরু হয়। ইবতেদায়ি সমাপনী শুরু হয় আরো এক বছর পর। সেই অনুযায়ী দশম বারের মতো প্রাথমিক সমাপনী ও নবমবারের মতো ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

নিয়ন্ত্রণ কক্ষ

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে প্রতিটি জেলায় পরীক্ষা কার্যক্রম পরিদর্শনের জন্য ভিজিল্যান্স টিম গঠন করা হয়েছে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খেলা হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন নম্বর ৯৫১৫৯৭৭ ও ই-মেইল mopmesch2@gmail.com এবং অধিদফতরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের টেলিফোন নম্বর ৫৫০৭৪৯১৭, ০১৮৫৫০৮০৩০৭ ও ০১৭১২১০৬৩৬৯। ই-মেইল-ddestabdpe@gmail.com। নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে পরীক্ষা সংক্রান্ত সব তথ্য জানা যাবে।’

পরীক্ষার বিস্তারিত সময়সূচি

প্রাথমিক সমাপনীতে ১৮ নভেম্বর ইংরেজি, ১৯ নভেম্বর বাংলা, ২০ নভেম্বর বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়, ২২ নভেম্বর প্রাথমিক বিজ্ঞান, ২৫ নভেম্বর গণিত এবং ২৬ নভেম্বর ধর্ম ও নৈতিক শিক্ষা পরীক্ষা হবে।

ইবতেদায়ি সমাপনীতে ১৮ নভেম্বর ইংরেজি, ১৯ নভেম্বর বাংলা, ২০ নভেম্বর বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় এবং বিজ্ঞান, ২২ নভেম্বর আরবি, ২৫ নভেম্বর গণিত, ২৬ নভেম্বর কুরআন ও তাজবীদ এবং আকাঈদ ও ফিকহ বিষয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে।

সংবাদ সম্মেলনে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. আবু হেনা মোস্তফা কামালসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।