রাত পোহালেই ঈদ

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের আকাশে ১৪৩৯ হিজরি সনের শাওয়াল মাসের চাঁদ দেখা গেছে। তাই রাত পোহালেই পালিত হবে পবিত্র ঈদুল ফিতর।

শুক্রবার সন্ধ্যায় (বাদ মাগরিব) বায়তুল মোকাররমের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।

চাঁদ দেখা পর্যালোচনা কমিটির সভায় সভাপতিত্ব করেন ধর্মমন্ত্রী ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ মতিউর রহমান। পরে তিনি সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

শুক্রবার সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়। সাধারণত মধ্যপ্রাচ্যের একদিন পর আমাদের দেশে রোজা ও ঈদ হয়ে থাকে। সে হিসেবে আগেই ধারণা করা হচ্ছিল শুক্রবার ঈদুল ফিতরের চাঁদ দেখা যাবে।

এদিকে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপনের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার ঈদ হবে এটা ধরে নিয়ে লাখ লাখ মানুষ নাড়ির টানে রাজধানী ছেড়েছেন।

রাজধানীতে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় ঈদগাহে সকাল সাড়ে আটটায়। তবে বৈরী আবহাওয়া থাকলে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে সকাল ৯টায় হবে প্রধান জামাত। বায়তুল মোকাররমে ঈদের পাঁচটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে ৪০৯টি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

বরাবরের মতো ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়ায়। তবে দিনাজপুরের গোর-এ শহীদ ঈদগাহেও হবে বৃহত্তম জামাত। বিভাগীয় শহরসহ জেলা শহরগুলোতেও ঈদ জামাতের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

পবিত্র ঈদুল ফিতর ‍উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদসহ বিশিষ্টজনেরা।

ইসলাম ধর্মমতে, এক মাস সিয়াম সাধনার পর ঈদুল ফিতর মুমিনের পুরস্কার। এদিন রোজাদারদের ক্ষমা করে দেয়া হয়। দুই রাকাত ওয়াজিব নামাজ ঈদের মূল আনুষ্ঠানিকতা। এছাড়া ঈদের নামাজে যাওয়ার আগে সদকাতুল ফিতর বা ফিতরা আদায়ের কথা রয়েছে হাদিসে।