রাজাপুরে ডবল মার্ডারের আসামী শুভকে কুপিয়ে হত্যা, ইউপি মেম্বর আটক

ঝালকাঠি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির রাজাপুরে কলেজ ছাত্র সোহেল রানা ও মাদ্রাসা ছাত্র শুক্কুর হাওলাদার হত্যা মামলার আসামী মেহেদি হাসান শুভর (২৫) ডান হাত, বাম পা কেটে নিয়ে মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে জানায় পুলিশ। মঙ্গলবার ভোররাতে উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের পশ্চিম বড়ইয়া গ্রামের কলাকোপা এলাকার সৈয়দ আলী মেম্বরের বাড়ি সংলগ্ন মাঠে এ ঘটনা ঘটে। শুভ উপজেলার বড়ইয়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল্লাহ আল মাহবুরের ছেলে এবং বড়ইয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএম শাখার দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র। শুভ বড়ইয়া ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা এব উপজেলা নির্বাচনে নৌকার সমর্থক ছিলো। এ ঘটনায় বড়ইয়া ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য সৈয়দ আলীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। নিহত শুভর বাবা আব্দুল্লাহ আল মাহবুব ও তার মা নাসিমা বেগম অভিযোগ করেন, পশ্চিম বড়ইয়া গ্রামের কলাকোপা এলাকার ইসরাফিল হাওলাদারের ছেলে নেয়ামত উল্লাহসহ কয়েক যুবক রাতে পিকনিকের কথা বলে শুভকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে শুভর মা মোবাইলে কল দিলে সে তার বন্ধুদের সঙ্গে আছে বলে জানায়। সকালে পশ্চিম বড়ইয়ার কলাকোপা বিলেরবাড়ি এলাকার সৈয়দ আলী মেম্বরের বাড়ি সংলগ্ন মোহন চৌকিদার বাড়ির সামনের মাঠে গোঙানির শব্দ পেয়ে প্রতিবেশী রেনু বেগম শুভকে রক্তাক্ত অবস্থায় ছটফট করতে দেখে শুভর বাবা মাহবুবকে খবর দেন। পরে (কোলা) হাত-পা কাটা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম অবস্থায় দেখে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজে নেওয়ার পথিমধ্যে ঝালকাঠির গাবখান এলাকায় বসে মারা যায়। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুভকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে, অভিযোগ তার পরিবারের। কলাকোপা এলাকার একাধিক বাসিন্দারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, পশ্চিম বড়ইয়া গ্রামের কলাকোপা এলাকার খান বাড়িতে ৭/৮ জনের একদল ডাকাত প্রবেশ করে ডাকাতিরে প্রস্তুতি নিলে ওইবাড়ির লোকজন ডাকাত ডাকাত বলে চিৎকার শুরু করে। এসময় তাদের ডাক চিৎকারে এলাকার সৈয়দ আলী মেম্বরের বাড়ির মহের উদ্দিন মুন্সিবাড়ি জামে মসজিদ, বিলের বাড়ি জামে মসজিদ ও হাজিবাড়ি জামে মসজিদের মাইকেও ডাকাত পড়েছে বলে ঘোষণা দিলে এলাকার লোকজন সবাই এগিয়ে এলে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। পরে সকালে ওই স্থানে হাত-পা কাটা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের গভীর রক্তাক্ত ক্ষত অবস্থায় তাকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ খবর দেয়া হয়। এদিকে এ ঘটনার পর ওই এলাকায় পুরুষ শূণ্য হয়ে গেছে। রাজাপুর স্বাস্থ্য কেন্দ্রের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আবুল খায়ের রাসেল জানান, ডান হাত ও বাম পা কেটে নেয়ায় এবং শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করায় অতিরিক্ত রক্তক্ষরনে তার মৃত্যু হয়েছে। রাজাপুর থানার ওসি মোঃ জাহিদ হোসেন ও এসআই রফিকুল ইসলাম জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটতে পারে এবং জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। পুলিশের তালিকাভূক্ত চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও কুখ্যাত সন্ত্রাসী বলেও জানায় পুলিশ। শুভ বড়ইয়ার কলেজের ছাত্র সোহেল রানা ও রাজাপুর ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্র শুক্কুর হাওলাদার হত্যা মামলার আসামী এবং ঢাকার একটি অস্ত্র আইনের মামলার রয়েছে তার নামে। এ ঘটনায় তার পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্ততি নিচ্ছে বলেও জানায় পুলিশ।