রাজাপুরে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণ কাজ পরিদর্শন

রহিম রেজা, ঝালকাঠি সংবাদদাতা : ঝালকাঠির রাজাপুরে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় ঘর নির্মান কাজ পরিদর্শন করলেন ইউএনও আফরোজা বেগম পারুল ও পিআইও নাসরিন সুলতানা।

জমি আছে ঘর নেই, তার নিজ জমিতে ঘর নির্মাণ’ এর লক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর প্রকল্পের আওতায় এ উপজেলার ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১০৮টি ঘরের মধ্যে বর্তমানে ৩৪ ঘরের চলমান নির্মাণ কাজ নিয়মানুযায়ী সঠিকভাবে সম্পন্ন করার লক্ষে বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার মঠবাড়ি ইউনিয়নের হাইলাকাঠি গ্রামের রাহেলা বেগম, মানকি গ্রামের মজিবুর রহমান, ডহরশঙ্কর গ্রামের অমল চন্দ্র, বাবুল হাওলাদার, পুখরিজানা গ্রামের মরিয়ম বেগম ও উত্তর বাগড়ির গোপাল চন্দ্র শীলের ঘরের নির্মান কাজ পরির্দশন করেন।

পরির্দশনকালে কয়েকটি ঘরের ত্রুটিপূর্ণ খুটি পরিবর্তন, প্রত্যেকটি ঘরে ৪টি জানালাসহ যাবতীয় কাজ দ্রুত সঠিকভাবে সম্পন্ন করার জন্য মঠবাড়ি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড মেম্বর নাসির উদ্দিন তারাকে নির্দেশ দেন।

ঘরপ্রাপ্ত ব্যক্তিরা নতুন ঘর পেয়ে খুব খুশি হন এবং তাদের ঘর দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

পরিদর্শনকালে সাংবাদিক ও স্থানীয় সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, এ প্রকল্পের অধীন উপজেলায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ১০৮টি ঘরের জন্য এক কোটি ৮ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়।

উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নের প্রতিটি ইউনিয়নে ১৮টি করে ঘর নির্মাণ করা হবে। বর্তমানে ৩৪ ঘরের নির্মানকাজ চলমান রয়েছে।

পাঁচ সদস্যের এ প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি হিসেবে ইউএনও, সদস্যসচিব পিআইও, সদস্য উপজেলা প্রকৌশলী, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান।

মঠবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মোস্তফা কামাল সিকদার জানান, মাত্র ১ লাখ টাকায় বর্তমান বাজারে ঘর নির্মান করা কঠিন। তার পরেও ওই বরাদ্দ দিয়েই সর্বোচ্চ ভালমানের ঘর নির্মান করা হচ্ছে।

ইউএনও আফরোজা বেগম পারুল জানান, নিয়মানুযায়ী যাতে ঘরগুলোর নির্মান করা হয় তার জন্য প্রতি নিয়তই নির্মানকাজের তদারকি করা হচ্ছে এবং পরিদর্শন করা হচ্ছে। নির্মান সামগ্রীর বা কাজের মানের কোন ত্রুতি পেলে তা দ্রুত সমাধান করে সঠিকভাবেই ঘর নির্মান কাজ সম্পন্ন করা হবে।

এ বিষয়ে সকলের সহযোগীতাও কামনা করেন তিনি।