রাজাপুরে আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন

রহিম রেজা, ঝালকাঠি থেকে : ঝালকাঠি-১ রাজাপুর-কাঠালিয়া আসনের এমপি বিএইচ হারুনকে জড়িয়ে উপজেলা যুবলীগের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে রাজাপুর সাংবাদিক ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন উপজেলা আওয়ামীলীগ।
সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি অ্যাড. খায়রুল ইসলাম সরফরাজ লিখিত বক্তব্যে বলেন, ৯ জুলাই উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির বিভিন্ন উক্তির বিরোধিতা ও প্রতিবাদ জানান। তিনি বলেন, ২৩ জুন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে তৃনমুল সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সেক্রেটারি, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের এবং ৩০ জুন দলীয় নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদকদের গণভবনে ডেকে সমাবেশ করেন। কিন্তু যে সকল সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও ইউনিয়ন পরিষদের দলীয় নির্বাচিত মেম্বরসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দদের নিয়ে ৭ জুলাই বিকেলে রাজাপুর উপজেলা অডিটোরিয়ামে সভা করেন ঝালকাঠি-১ রাজাপুর-কাঠালিয়া আসনের এমপি বিএইচ হারুন। কিন্তু জনবিচ্ছিন, তৃনমুল নেতাকর্মীদের প্রত্যাখিত ঢাকাস্থ কিছু মনোয়ন প্রত্যাশী বিলবোর্ড সর্বস্ব প্রার্থীগণ উপজেলা যুবলীগের কিছু বিপদগামী ও আদর্শচ্যুত কর্মীকে নেপথ্যে ভুল বুঝিয়ে এমপি হারুনকে তথা ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগকে কলুষিত করার জন্য মতবিনিময় সভা থেকে বিরত থাকেন। তাদের দাবি ছিল এমপি হারুনের কারনেই গণভবনে যুবলীগ কর্মীদের ডাকা হয়নি। তাই তাদেরকে অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। কিন্তু পরবর্তীতে যখন জানতে পারেন গণভবনে যুবলীগের কোন নেতাকর্মীকে ডাকেননি এবং এমপি নির্দোষ তখন তারা আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য দেউলিয়া হয়ে অবান্তর, অবাস্তব এবং অসত্য কিছু উক্তিকে প্রেসবিজ্ঞপ্তি দিয়ে দলের ভাবমূর্তী নষ্ট করেছে। যাহার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থতি ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আফরোজা আক্তার লাইজু, সদর ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মজিবর মৃধা, সাতুরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান, মঠবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল সিকদার, আ’লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম খসরু, মজিবুর রহমান মৃধা, শাহিন মাতুব্বর, নাজনীন পাখি, শাহনাজ লিপি, আব্দুল মালেক, মজিুবুর রহমান ফকির, নজরুল ইসলাম পনু, তৌহিদুল ইসলাম, তরিকুল ইসলাম তারেক, হুমাউন কবির ও মাহমুদুল হাসান প্রমুখ।