রাজশাহীর বাগমারায় ভুয়া ভাইস চ্যান্সেলর গ্রেফতার

নিজেকে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর দাবি করা মাও. রফিকুল ইসলামকে আবারও গ্রেফতার করেছে রাজশাহীর বাগমারা থানা পুলিশ। এ সময় পুলিশ তার ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাস জব্দ করে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকালে মাও. রফিকুল ইসলাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকিউল ইসলামের দফতরে এসে নিজেকে বাগমারার অর্জুনপাড়া মদিনাতুল উলুম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর পরিচয় দিয়ে ব্যাংকের টাকা উত্তোলনের জন্য কিছু কাগজপত্রে ইউএনও’র স্বাক্ষর চান। এ সময় ইউএনও তার কাছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার বৈধ কাগজপত্র দেখতে চাইলে ও কিছু প্রশ্ন করলে রফিকুল ইসলাম তার কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হন। এসময় ইউএনও পুলিশকে খবর দিয়ে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়ে নিয়মিত মামলা দেওয়ার নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে ইউএনও জাকিউল ইসলাম জানান, নিজেকে ভাইস চ্যান্সেলর পরিচয়দানকারী রফিকুল ইসলামের নানান বিতর্কিত কর্মকাণ্ড একাধিক প্রতারণার কারণে এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত কয়েকদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের দফতর থেকে তার দফতরে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে। রাজশাহীর বাগমারায় এই নামে (অর্জুনপাড়া মদিনাতুল ইলুম ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়) কোন প্রতিষ্ঠান নেই। চিঠিতে এই নাম ব্যবহারকারী প্রতারকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয়। উক্ত চিঠি ও ভুক্তভোগী এলাকাবাসীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে রফিকুল ইসলামকে পুলিশে সোপর্দ করে তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দেওয়ার জন্য বাগমারা থানার পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ নাছিম আহম্মেদ জানান, প্রতারণার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে রফিকুল ইসলামকে তার ব্যবহৃত মাইক্রোসহ গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

উল্লেখ্য, এর আগে একই অভিযোগে রফিকুল ইসলাম আরো দুইবার ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা ভোগ করেছেন।