রাজশাহীতে কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে দগ্ধ গৃহবধূর মৃত্যু

রাজশাহীতে কেরোসিনের চুলা বিস্ফোরণে দগ্ধ হয়ে গৃহবধূ শান্তা খাতুনের (২০) মৃত্যু হয়েছে। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ মঙ্গলবার সকালে তিনি মারা যান। গৃহবধূ শান্তা মহানগরীর রাজপাড়া থানার বিলশিমলা এলাকার সবজি ব্যবসায়ী আশিক রেজার স্ত্রী।

আশিক রেজার খালাতো ভাই রুবেল হোসেন জানান, গত রবিবার রাতে কেরোসিনের চুলায় রান্না করছিলেন শান্তা। এ সময় চুলা বিস্ফোরিত হয়ে শান্তার শরীরে আগুন ধরে যায়। আগুন নেভাতে গিয়ে আশিক রেজাও আহত হন। পরে তাদের রামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শান্তাকে বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়। আর তার স্বামী আশিক রেজা প্রাথমিক চিকিৎসা নেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শান্তা মারা যান। শান্তার বাবার বাড়ি নাটোরের লালপুর উপজেলায়। দাফনের জন্য শান্তার বাবা লাশ গ্রামের বাড়ি নিয়ে গেছেন।

নগরীর রাজপাড়া থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, শান্তার মৃত্যুর ঘটনায় পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ নেই। তাই ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।