যে কোন দিন কাশ্মিরে ঢুকবে চীনা সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ডোকা লা ইস্যুর বিতর্ক ঘুরে নতুন মোড় নিয়েছে ভারত-চীন কূটনৈতিক টানাপড়েন। ভারত যদি ডোকা লা-তে সেনা পাঠাতে পারে, তা হলে চীনা সেনাবাহিনীও যে কোনও দিন ঢুকবে ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে, চীনের ওয়েস্ট নর্মাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর ইন্ডিয়ান স্টাডিজের প্রধান লং জিংচাম এই হুমকি দিলেন। তিনি বলেন, যে যুক্তিতে চীন ও ভুটানের মধ্যে বিতর্কিত এলাকা ডোকা লা-য় প্রবেশ করেছে ভারতীয় সেনা, সেই একই যুক্তিতে কাশ্মিরে চীনা সেনা ঢুকতে পারে।রবিবার চীনের সরকারি সংবাদপত্র ‘গ্লোবাল টাইমসে’ এই হুমকি দিয়েছেন এই চীনা বিশেষজ্ঞ। একইসঙ্গে ডোকা লা ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহল চিনের উপর কোনও চাপ তৈরি করতে পারবে না বলেও দাবি করেছেন জিংচাম।পাশাপাশি, আজ সোমবার বেজিংয়ের আরও একটি দাবি ভারত-চীন বিতর্কে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। চীনা দূতাবাসের পক্ষে দাবি করা হয়েছে, গত শনিবার ভারতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লুও জাওহুইয়ের সঙ্গে দেখা করেছেন কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গান্ধী। সম্প্রতি দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের গতিপ্রকৃতি নিয়ে আলোচনা করতে এই সাক্ষাৎ বলে দাবি করা হয়।সিকিম, ভুটান ও তিব্বতের মধ্যবর্তী এলাকা ডোকা লা-য় রাস্তা তৈরি করতে চলেছে চীন। নয়াদিল্লির মতে, ডোকা লা ভুটানের অন্তর্ভুক্ত, ফলে সেখানে চীনের রাস্তা তৈরি ভারতের নিরাপত্তার পক্ষে ঝুঁকির কারণ হতে পারে। অন্য দিকে, ডোকা লা-য় সেনা পাঠানো নিয়ে দফায় দফায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছে বেজিং। আর এবার কাশ্মিরে সেনা পাঠানোর হুমকি দিয়ে ফেললেন এক চীনা বিশেষজ্ঞ।গত শুক্রবারই জি-টোয়েন্টি সম্মেলনের ফাঁকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের বৈঠকের পর মনে করা হয়েছিল, সিকিম সীমান্তে টানাপড়েনের সমাধান হয়তো সম্ভব হবে। কিন্তু, গ্লোবাল টাইমসে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনের পর দুই দেশের সম্পর্কে নতুন মাত্রা যোগ হতে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে।