মুক্তির মিছিলে আইরিনের তিন ছবি

বিনোদন ডেস্ক : বাংলা চলচ্চিত্রের উঠতি তারকা অভিনেত্রী আইরিন সুলতানা। মডেলিং দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করা আইরিন হুট করেই ঢুকে পড়েন রূপালী পর্দার জগতে। এ পর্যন্ত তার অভিনীত পাঁচটির মতো ছবি মুক্তি পেয়েছে। চলতি বছরে মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে আইরিনের আরও তিনটি ছবি। যেগুলোর প্রতিটিই সেন্সর থেকে ছাড়পত্র পেয়েছে, কিন্তু কোনোটারই মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হয়নি। ছবিগুলো হচ্ছে ‘গন্তব্য’, ‘ভোলা’ ও ‘টার্গেট’।

‘গন্তব্য’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন অরণ্য পলাশ। এই ছবিতে আইরিনের নায়ক বাংলা ও কলকাতার ছবির জনপ্রিয় অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ। ছয় বন্ধু মিলে একটি ছবি নির্মাণ এবং সেই ছবিটি সারা দেশে প্রদর্শন করানোর ঘটনা নিয়ে গড়ে উঠেছে ‘গন্তব্য’ ছবির কাহিনি। এর বিভিন্ন চরিত্রে আরও রয়েছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, আমান রেজা, মাসুম আজিজ, আফফান মিতুলসহ অনেকে। ছবিটি প্রযোজনা করেছে সুইট চিলি ফিল্মস।


‘ভোলা’ ছবিতে আইরিন জুটি বেঁধেছেন বাপ্পী চৌধুরীর সঙ্গে। এটি পরিচালনা করেছেন আহমেদ সোহেল। পরিচালকের ছোটবেলায় দেখা রাজধানী ঢাকার কিছু ঘটনা নিয়ে এই ছবিটি নির্মাণ করেছেন তিনি। ১৯৩৫ সালের দিকে গুলশান-বনানী এলাকার নাম ছিল ‘ভোলা’। এক সময় সেখানে উন্নয়ন শুরু হয়, জমিতে বালু ফেলে জমির মালিকের সঙ্গে আলাপ করা হয়। পরে আসল মালিকরা নামমাত্র মূল্যে জমি বিক্রি করতে বাধ্য হন। এমন কিছু ঘটনাই ছবির মূল কাহিনি। তবে ১৯৩৫ সালের প্রেক্ষাপটে ছবি বানাচ্ছেন না পরিচালক। বর্তমান সময়ের গল্পের সঙ্গে পুরনো দিনের কিছু বিষয়ও তুলে আনা হয়েছে ছবিতে।

অন্যদিকে, ‘টার্গেট’ ছবিতে আইরিনের নায়ক ছোট পর্দার অভিনেতা আনিসুর রহমান মিলন। ছবিটি পরিচালনা করেছেন সাইফ চন্দন। চিত্রনাট্য লিখেছেন অয়ন চৌধুরী। তারুণ্যনির্ভর এ ছবির গল্প নানা চমকে ভরপুর। মিলন-আইরিনের পাশাপাশি ‘টার্গেট’ ছবিতে রয়েছে একটি নতুন জুটিও। তানভীর ও সানজিদা তন্ময়। এই সানজিদা তন্ময়কে ‘বাপজানের বায়োস্কোপ’ ছবিতে শহীদুজ্জামান সেলিমের স্ত্রীর চরিত্রে দেখা গিয়েছিল। অন্যদিকে, তানভীর নিয়মিত নাটকে কাজ করেন।


ফিরে আসি আইরিন প্রসঙ্গে। ২০০৮ সালে ‘প্যান্টেনা ইউ গট দ্য লুক’ প্রতিযোগিতায় ‘সেরা হাসি’ পুরস্কার জিতে কর্মজীবন শুরু করেন আইরিন। দেশ-বিদেশে বহু র‍্যাম্প মডেলিংয়ে অংশগ্রহণ করেছেন তিনি। তার চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় ২০১৩ সালে। সে বছর দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত ‘ভালোবাসা জিন্দাবাদ’ ছবিতে আরিফিন শুভর বিপরীতে অভিনয় করেন তিনি। ছবিটি বক্স অফিসে ভালোই সাড়া জাগায়। এরপর থেকেই আইরিন রূপালী পর্দার মানুষ।

Inline
Inline