মির্জাপুরে মাকে কুপিয়ে হত্যায় আসামি গ্রেপ্তার

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)প্রতিনিধি : টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে মাকে কুপিয়ে হত্যার আট ঘণ্টার মাথায় ছেলে কাউছার মীরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শনিবার বিকালে উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের ধানকী পাইকপাড়া গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের স্বামী মো. ফজলু মীর মামলা করলে রাত ১১টার দিকে পাশের কালিয়াকৈর উপজেলার রতনপুর এলাকা থেকে ছেলে কাউসারকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এদিকে রবিবার বিকালে কাউছারকে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত মির্জাপুর কোর্টের হাকিম মাহাবুবা নওরীনের নিকট হাজির করলে তিনি হত্যার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

মায়ের পরকীয়া সহ্য করতে না পেরে তার মাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে আদালতকে জানিয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক মোতালেব হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, সাংসারিক বিষয় নিয়ে কাউছারের সঙ্গে তার পরিবারের সদস্যদের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। শনিবার বেলা ১১টার দিকে ফজলু মিয়া তার স্ত্রী নিহত মোছা. রিনা বেগমকে বাড়িতে রেখে পাশে পাট খেতে কাজ করতে যান। বিকাল সোয়া তিনটার দিকে তিনি বাড়িতে দুপুরের খাবারের জন্য যান। তিনি ঘরের দরজার সামনে গিয়ে দেখেন ভেতর থেকে রক্ত বাইরে বেরিয়ে আসছে। তখন তার চিৎকারে ছোট ছেলে রাব্বি মীরসহ আশেপাশের লোকজন ছুটে আসে। এ সময় তারা দরজা খুলে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপানো অবস্থায় রিনার মরদেহ দেখতে পান। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শ্যামল কুমার দত্ত জানান, হত্যার আট ঘণ্টার মাথায় পুলিশ মুঠোফোনের সূত্র ধরে আসামিকে কালিয়াকৈর উপজেলার রতনপুর থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে আদালতে হাজির করলে সে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

Inline
Inline