মাহির ‘জান্নাত’-এর অপেক্ষায় শ্বশুরবাড়ি

বিনোদন ডেস্ক : ২০১৬ সালের ২৪ মে পারভেজ মাহমুদ অপুকে বিয়ে করেন বাংলা চলচ্চিত্রের এই সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও দামি নায়িকা মাহিয়া মাহি। গত দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে ব্যবসায়ী স্বামীকে নিয়ে বেশ সুখেই সংসার করছেন নায়িকা। পাশাপাশি পুরোদমে চালিয়ে যাচ্ছেন অভিনয়।

অভিনয়ের ক্ষেত্রে শ্বশুরবাড়ির লোকদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে মাহির প্রতি। বিশেষ করে, তার স্বামী অপু সব সময়ই তাকে এ ব্যাপারে উৎসাহ দেন। সুপারস্টার বউয়ের ছবির শুটিং দেখতে বিভিন্ন লোকেশনে মাঝেমধ্যেই তিনি হাজির থাকেন। ক্যারিয়ারকে এগিয়ে নিতে স্বামী অপুর এমন সহযোগিতার কথা অনেক আগেই জানিয়েছিলেন মাহি।

এবার জানালেন তার অভিনীত নতুন ছবি ‘জান্নাত’ দেখতে নাকি অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন তার শ্বশুরবাড়ির লোকজন। ‘জান্নাত’ ‍মুক্তি পাবে আসছে ঈদুল আজহায়। ছবির মুক্তিকে সামনে রেখে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সম্প্রতি এমনটাই জানিয়েছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত তারকা মাহিয়া মাহি।

নায়িকার কথায়, ‘এখন পর্যন্ত যতগুলো ছবিতে অভিনয় করেছি, কোনোটা আমার পরিবার পছন্দ করেছে, কোনোটা করেনি। কাউকে কোনো ছবি দেখতে পরামর্শ দিয়েছি, কোনোটা পারিনি। কিন্তু এবারই প্রথম আমার ছবি দেখার জন্য শ্বশুরবাড়ির সবাই অপেক্ষা করছেন। কবে ‘জান্নাত’ মুক্তি পাবে সেই দিন গুনছেন। এটা আমার জন্য বড় পাওয়া।’

মাহি বলেন, ‘ছবির পরিচালককে ধন্যবাদ জানাই। কারণ তিনি আমাকে এমন একটি ছবিতে কাজ করার সুযোগ দিয়েছেন। ‘জান্নাত’ এমন একটি ছবি, যা আমার শ্বশুরবাড়ির সবাইকে দেখাতে পারব। এটাই জীবনের সবচেয়ে বড় খুশির ব্যাপার। এর চেয়ে খুশির আর কিছুই হতে পারে না। ভক্তদের সবার কাছে দোয়াপ্রার্থী।’

সুদীপ্ত সাইদের কাহিনি থেকে নির্মিত ‘জান্নাত’ ছবিটি পরিচালনা করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। প্রযোজনা করেছে এসএস মাল্টিমিডিয়া। ছবিতে মাহি রয়েছেন নাম ভূমিকায়। মাজারের খাদেম বাবার মেয়ে তিনি। মাহির এই খাদেম বাবার চরিত্রে আছেন অভিনেতা আলীরাজ। আরও আছেন খলনায়ক মিশা সওদাগর।

এই ছবিতে মাহির নায়ক সায়মন সাদিক। তিনি মাজারের খাদেম বাবার মুরিদ। তার চরিত্রের নাম ইফতেখার। ছবিতে সায়মনের ভূমিকা ইসলাম নামধারী সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে। চরিত্রটি সম্পর্কে অনেক আগে সায়মন বলেছিলেন, এ ধরনের চরিত্রে তিনি আগে কখনও অভিনয় করেননি। এমনকী এমন গল্পে কখনো ছবিও নির্মিত হয়নি। কাজেই এ ছবি দেখতে মাহির শ্বশুরবাড়ির মতো অপেক্ষায় দর্শকরাও।