‘মারামারির’ ঘটনা নিয়ে লাইভে মিরাজ-সাব্বির

ক্রীড়া প্রতিবেদক : আফগানিস্তানের বিপক্ষে সর্বশেষ টি-টুয়েন্টিতে একাদশে রাখা হয়নি সাব্বির রাহমানকে। শৃঙ্খলাভঙ্গের কারণেই নাকি শেষ ম্যাচে বাদ পড়েছিলেন সাব্বির। এমন খবর শুনে অনেকটা উত্তেজিত হয়ে উঠে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো। তাই ভক্তদের সামনে এই ঘটনা নিয়ে রবিবার এক সঙ্গে ফেসবুক লাইভে হাজির হলেন সাব্বির রাহমান এবং মেহেদী হাসান মিরাজ।

শনিবার ভারতের ক্রিকেটভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ক্রিকবাজের খবরে জানানো হয়, দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি চলার সময় মিরাজের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান সাব্বির। ৫ জুন ম্যাচ চলাকালে ড্রেসিংরুমে সতীর্থ মেহেদী হাসান মিরাজের সঙ্গে বাকবিতণ্ডায় জড়ান সাব্বির। উত্তপ্ত বাক্যবিনিময় শেষ পর্যন্ত মারামারিতে গড়ায়। সাব্বির-মিরাজের ঝগড়ার বিষয়টি ধরা পড়েছিল বাংলাদেশ দলের সঙ্গে থাকা বোর্ডের কর্মকর্তার চোখেও।

তবে রবিবার লাইভে এসে সাব্বির জানান তাদের মধ্যে তেমন কিছুই হয়নি। যা হয়েছে সেটা শুধু মাত্র ‘মিস আন্ডাস্ট্যান্ডিং’। এই বিষয়টিকে ভক্তদের ইতিবাচক ভাবে দেখার জন্য অনুরোধ করেন দুইজন।

ফেসবুক লাইভে সাব্বির প্রথমে বলেন,‘আজকে যার সঙ্গে আমি লাইভে এসেছি সে হচ্ছে ‘স্টারবয়’ মেহেদী হাসান মিরাজ। সে আমার ছোট ভাই। আসলে আমাদের মধ্যে একটা মিস আন্ডারস্ট্যান্ডিং হয়েছে। আপনারা হয়তো শুনেছেন যে দেরাদুনে আমাদের একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। পরিবারের মধ্যে অনেক সময় এমন হয়। যেটা পরিবারের মধ্যেই থাকা উচিত। আর বড় হয়ে ওর সঙ্গে আমার এমন কাজটা করা ঠিক হয়নি। তবে চেষ্টা করি সবসময় ছোট ভাইদের ভালোবাসা বা স্নেহ করার জন্য। অ্যাজ এ ছোট ভাই ওর (মিরাজের) সাথে আমার ভালো সম্পর্ক। ওর বাসায় এসেছি। ডিনারে ইনভাইট করেছে, ডিনার করতে এসেছি। আর যেটা হয়েছে সেটা হিট দ্য মোমেন্ট। এই বিষয় নিয়ে আর বেশি কিছু বলার নেই।’

এরপর মারামারির বিষয়টা নিয়ে মিরাজ বলেন,‘এই বিষয়টা নিয়ে অনেকের নেগেটিভ ধারণা। অনেক মানুষ অনেক কমেন্ট করতেছে যে আমাদের ভিতরে কি ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। অনেকে ভাবছে যে আমার সাথে সাব্বির ভাইর মারামারি হইছে। আসলে তেমন কিছুই না। সাব্বির ভাই আমাকে অনেক আদর করে, অনেক আগে থেকেই ভালোবাসেন।’

Inline
Inline