মাদারীপুর-৩: জনপ্রিয়তায় এগিয়ে আবুল হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে মাদারীপুর-৩ (কালকিনি-ডাসার) আসনের রাজনৈতিক মাঠ সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সম্ভাব্য মনোনয়নপ্রত্যাশীদের জনসংযোগে নির্বাচনী আবহ তৈরি হচ্ছে এলাকায়।মোটা দাগে দুই দলেই দুজন করে প্রধান মনোনয়নপ্রত্যাশী সামনে আসছেন। আওয়ামী লীগে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন ও দলের সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমান এমপি আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম।
বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে আলোচনায় রয়েছেন গুম থেকে ফিরে আসা কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সহ-সম্পাদক আনিসুর রহমান তালুকদার খোকন ও বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার মাশুকুর রহমান। সম্ভাব্য প্রার্থীদের জনসংযোগ ও তাদের কর্মীদের তৎপরতায় রীতিমতো নির্বাচনী হাওয়া বইছে এই আসনের রাজনৈতিক অঙ্গনে। তারা দলীয় কর্মসূচির পাশাপাশি সামাজিক, সাংস্কৃতিকসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরছেন ভোটারদের কাছে।আওয়ামী লীগে সৈয়দ আবুল হোসেন ও বাহউদ্দিন নাছিম ছাড়াও আরো একাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী মাঠে তৎপরতা চালাচ্ছেন বলে জানা যায়। তাদের মধ্যে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য আনোয়ার হোসেন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক।তবে সৈয়দ আবুল হোসেন ও বাহাউদ্দিন নাছিমকে ঘিরে মূলত দুই ভাগে বিভক্ত এই আসনের স্থানীয় আওয়ামী লীগ।১৯৯১ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত টানা চারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য সৈয়দ আবুল হোসেন জেলায় নানা সমাজসেবা, স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠাসহ জনহিতকর কাজের ফলে জনপ্রিয়তায় তুঙ্গে। মন্ত্রী থাকাকালে ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন জেলায়। আর কৃষিবিদ বাহাউদ্দিন নাছিম গত কয়েক বছর ধরে তার নির্বাচনী এলাকায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।এদিকে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী আনিসুর রহমান খোকন তালুকদার নির্বাচনী মাঠে ব্যাপক দৌড়ঝাঁপ করছেন। তিনি বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন। তবে খন্দকার মাশুকুর রহমান এখন পর্যন্ত চুপচাপ। তার প্রচার-প্রচারণা তেমন একটা চোখে পড়ছে না।
নির্বাচনের সময় যত এগিয়ে আসছে মাদারীপুর-৩ আসনের রাজনীতিতে ততই নতুন মাত্রা যোগ হচ্ছে। অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব কাটিয়ে উঠতে পারছে না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। তবে পদ্মা সেতু দুর্নীতির অভিযোগ খারিজ হয়ে যাওয়ায় আবুল হোসেন আসনটি আবার ফিরে পেতে যাচ্ছেন বলেই ধারণা এলাকার মানুষের। এ ছাড়া বর্তমান সংসদ সদস্য বাহাউদ্দিন নাছিম তৎপর রয়েছেন আসনটি ধরে রাখতে।